সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে থাকা অভিনেতা মারজুক রাসেল ও র‍্যাপার আলী হাসানের ‘নানা-নাতি’ গানটি অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। ওই গানে আদালত অবমাননামূলক একটি লাইন থাকার অভিযোগ এনে মানবাধিকার সংগঠন সারডা সোসাইটির করা রিটের শুনানি নিয়ে রোববার (৭ জুলাই) এ আদেশ দেন বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ। আবেদনকারীপক্ষ থেকে জানানো হয়, গত ১৬ জুন ঈদুল আজহায় মুক্তি পাওয়া আরবিটি এন্টারটেইনমেন্ট এর ‘নানা- নাতি’ র‌্যাপ গানের ১ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে লাইনটি রয়েছে। যেখানে আদালতকে প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে, যা আদালত অবমাননা করার শামিল। এরপর সারডা সোসাইটির পক্ষে নির্বাহী পরিচালক মো. আরিফুর রহমান মুরাদ ভূঁইয়া হাইকোর্টে ৩ জুলাই রিট করেন। রোববার ওই রিটের ওপর তিনি আইনজীবী ছাড়া ব্যক্তিগতভাবে শুনানি করেন। সোমবার (৮ জুলাই) মো. আরিফুর রহমান মুরাদ ভূঁইয়া জানান, ব্যক্তিগতভাবে আলী হাসানকে চিঠিও দিয়েছি। এরপর অপসারণ না করায় সংগঠনের পক্ষে রিট করেছি। রোববার রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে আদালত চার সপ্তাহের রুল জারি করেছেন। একইসঙ্গে সাত দিনের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে বিটিআরসিকে ‘নানা নাতি’ গানটি অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন। গণমাধ্যমের খবর অনুসারে , নানা-নাতি’ গানটি লিখেছেন র‍্যাপার আলী হাসান, সুর করেছেন আলী হাসান ও মারজুক রাসেল। আলী হাসান ও মারজুক রাসেলের গাওয়া ‘নানা-নাতি’ গানটি গত ১৬ জুন ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পায়।