৬ মার্চের মধ্যে আ’লীগের ৪৫ সাংগঠনিক জেলা সম্মেলন

আওয়ামী লীগের মেয়াদোত্তীর্ণ সাংগঠনিক জেলাগুলোর সম্মেলন আগামী ৬ মার্চের মধ্যে আয়োজনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে এই সময়ের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ উপজেলা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড শাখাগুলোর সম্মেলন করার নির্দেশনাও রয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ বিষয়ে সংশ্নিষ্ট জেলাগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন।

আট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিদায়ী কার্যনির্বাহী সংসদের মেয়াদকালে ৭৮টি সাংগঠনিক জেলার মধ্যে ৩৩টির সম্মেলন হয়েছে। বাকি ৪৫টি জেলার মধ্যে বেশির ভাগের মেয়াদ ফুরিয়ে গেছে। কয়েকটি জেলার মেয়াদ আগামী দুই মাসের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। এই ৪৫ জেলার সম্মেলন আয়োজন করার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে নরসিংদী ও পঞ্চগড় জেলা সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হয়েছে।

আলোচিত ৪৫টি জেলা হচ্ছে- টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, ঢাকা, গাজীপুর, গাজীপুর মহানগর, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ মহানগর, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, জামালপুর, শেরপুর, ময়মনসিংহ, ময়মনসিংহ মহানগর, নেত্রকোনা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা দক্ষিণ, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, চট্টগ্রাম মহানগর, কক্সবাজার, রাঙামাটি, পঞ্চগড়, দিনাজপুর, গাইবান্ধা, জয়পুরহাট, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী মহানগর, নাটোর, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ, মাগুরা, বরগুনা, ভোলা, বরিশাল ও পিরোজপুর।

এদিকে, কয়েকজন সাংগঠনিক সম্পাদক সমকালকে জানিয়েছেন, নতুন কার্যনির্বাহী সংসদের কার্যক্রম এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়নি। ১৮ জানুয়ারি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কবর জিয়ারতের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ডাকা হয়েছে। সভায় মেয়াদোত্তীর্ণ জেলাগুলোর সম্মেলনের আগে কিংবা পরে মেয়াদোত্তীর্ণ সাংগঠনিক উপজেলা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড শাখাগুলোর সম্মেলন প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে ৬ মার্চের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ সাংগঠনিক জেলাগুলোর সম্মেলন প্রক্রিয়া নিয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু হয়েছে। ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম জানিয়েছেন, আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি নরসিংদী জেলা সম্মেলনের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসে মানিকগঞ্জ জেলার সম্মেলন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ৮ ফেব্রুয়ারি পঞ্চগড় জেলার সম্মেলন হবে বলে জানিয়েছেন খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক। তিনি বিদায়ী কার্যনির্বাহী সংসদে রংপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, জয়পুরহাট, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী মহানগর, নাটোর, সিরাজগঞ্জ ও পাবনা জেলা সম্মেলন আয়োজনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ১৯ জানুয়ারি সকাল ১০টায় ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে সভা ডাকার প্রস্তুতি রয়েছে। সংশ্নিষ্ট জেলাগুলোর সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং ওই জেলাগুলোর দলীয় এমপিরা সভায় উপস্থিত থাকতে পারেন। ওই সভায় আলোচিত জেলাগুলোর সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারণের সম্ভাবনা রয়েছে।

বিদায়ী কার্যনির্বাহী সংসদের মেয়াদকালে ঢাকা দক্ষিণ, ঢাকা উত্তর, সুনামগঞ্জ, সিলেট, সিলেট মহানগর, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, কুমিল্লা মহানগর, কুমিল্লা উত্তর, ফেনী, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম উত্তর, চট্টগ্রাম দক্ষিণ, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান, ঠাকুরগাঁও, নীলফামারী, লালমনিরহাট, রংপুর, রংপুর মহানগর, কুড়িগ্রাম, বগুড়া, রাজশাহী, কুষ্টিয়া, যশোর, নড়াইল, বাগেরহাট, খুলনা, খুলনা মহানগর, সাতক্ষীরা, বরিশাল মহানগর, পটুয়াখালী ও ঝালকাঠি জেলার ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা দক্ষিণ, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, চট্টগ্রাম মহানগর, কক্সবাজার ও রাঙামাটি জেলায় সম্মেলন আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে। বরিশাল বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন জানিয়েছেন, দ্রুতই বরগুনা, ভোলা, বরিশাল ও পিরোজপুর জেলা সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারণের সম্ভাবনা রয়েছে। ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেছেন, জামালপুর, শেরপুর, ময়মনসিংহ, ময়মনসিংহ মহানগর ও নেত্রকোনা জেলা সম্মেলন আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।