You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শ্রীবরদীর সীমান্তে বিজিবি’র গুলি বর্ষণ অত:পর মামলা


শ্রীবরদীর সীমান্তবর্তী সিংগাবরুনা ইউনিয়নের ঝুলগাঁও গ্রামের সীমান্ত সড়কে কর্ণঝোরা সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবি’র জওয়ানরা ভারতীয় চোরাই গরু আটকের সময় শনিবার সকালে ৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেছে। এঘটনায় বিজিবি’র নায়েক সুবেদার নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৪ জনের নামে ও অজ্ঞাত ৩০/৪০ জনকে আসামী করে শ্রীবরদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। এনিয়ে এলাকায় আতংক বিরাজ করছে।
জানাগেছে, শনিবার সকালে ঝুলগাঁও গ্রামের সীমান্ত সড়কের লাবলু মিয়ার দোকান সংলগ্ন কবরস্থানের পাশ দিয়া চোরাকারবারিরা ভারতীয় চোরাই গরু নিয়ে আসছে। কর্ণঝোরা সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবি জওয়ানরা গোপন সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আটকের চেষ্টা করে। এসময় চোরাকারবারি ও বিজিবি’র মধ্যে বাকবিতন্ডা,ধস্তাধস্তি ও মারপিটের ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে বিজিবি’র সদস্যরা ৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে চোরাকারবারিদের ছত্রভঙ্গ করতে সক্ষম হয়। পরে ২ টি গরু আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে চলে যায়। এঘটনায় বিজিবি’র নায়েক সুবেদার নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৪ জনের নামে ও অজ্ঞাত ৩০/৪০ জনকে আসামী করে শ্রীবরদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।
ঝুলগাঁও গ্রামের আলফাজ দেওয়ানীর ছেলে দুলু জানান, শনিবার সকালে লাবলু মিয়ার দোকান সংলগ্ন কবরস্থানের নিকট দিয়ে হযরত আলীর ছেলে ইসমাইল ওরফে ইলিয়াস পালের গরু পাহাড়ে নিয়ে যাচ্ছিল। এমন সময় বিজিবি তার কাছ থেকে গরু ২টি আটকের চেষ্টা করলে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরু হয়। খবর পেয়ে ইসমাইলের মা, স্ত্রী ও আতœীয় স্বজন ঘটনাস্থলে আসে এবং বিজিবি’র সাথে বাকবিতন্ডা শুরু করে। পরে বিজিবি ক্ষিপ্ত হয়ে মারপিট শুরু করে। এরপর ৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে ২টি গরু আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায়। ইসমাইলের পিতা সাবেক মেম্বার হযরত আলী জানান, ইতিপুর্বে বিজিবি’র সদস্যরা আমার বাড়ির পালের ৯টি গরুর মধ্য থেকে ৬টি গরু ভারতীয় চোরাই গরু সন্দেহ জনকভাবে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে গিয়েছিল।

পরে বিজিবি’র উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানালে গরু ছেড়ে দেয়। এঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজিবি আমার পরিবারের লোকজনকে মারপিট করেছে এবং আমার স্ত্রী ইসিমা (৫০) ও ছেলে ইসমাইলের স্ত্রী আয়না(৩০) গুরুতর আহত হয়ে বকশিগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এঘটনার সংবাদ পেয়ে শ্রীবরদী থানার উপ-পরিদর্শক এমদাদুল হক সংগীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নায়েক সুবেদার নুরুল ইসলাম বলেন, ইতিপুর্বেও চোরাকারবারিরা বিজিবি’র উপর হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। খবর পেয়ে ২৭ বিজিবি ক্যাম্পের লেফটেনেন্ট আনিসুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!