শ্রীবরদীতে ২ ইউনিয়ন বন্যায় প্লাবিত

টানা কয়েকদিনের ভারি বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ব্রক্ষপুত্র নদের পানিতে শ্রীবরদী উপজেলার ভেলুয়া ও খড়িয়া কাজির চর ইউনিয়নের প্রায় ৩০ টি গ্রাম বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। কর্মহীন হয়ে পরেছে সহ¯্রাধিক মানুষ। সংকট দেখা দিয়েছে গো-খাদ্যের। গ্রামগুলো হচ্ছে ভেলুয়া ইউনিয়নের লক্ষী ডাংরি, চকবন্দি, চকবন্দি নয়াপাড়া, চকবন্দি মধ্যপাড়া, চকবন্দি নিজপাড়া, চকবন্দি চকপাড়া, দষ্টিপাড়া, তিনানী ভেলুয়া, ঢনঢনিয়া ও শিমুলচড়া। অপরদিকে খড়িয়া কাজির চর ইউনিয়নের গ্রামগুলো হচ্ছে ভাংগার পাড়া, রুপার পাড়া, বন্ধ বৈষ্ণবের চর, হালগড়া, মাদারপুর, গড়পাড়া, লংগর পাড়া, কাজির চর, পোড়াগড়, বীরবান্দা ও দক্ষিণ খড়িয়া। এসকল গ্রামের কয়েক শতাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পরেছে এবং দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট। কৃষি অফিসের তথ্য মতে ভেলুয়া ইউনিয়নে ৬ শত ২৫ হেক্টর রোপা আমন ধান ক্ষেত পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে ও ৩ শত ৭৫ হেক্টর রোপা আমন ধান ক্ষেত আংশিকভাবে পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। নষ্ট হয়েছে ২০ হেক্টর জমির সবজি জাতীয় ফসল বেগুন, ঢেড়স, করল্লা, পুটল, ধুধুল কোমড়া ও কাকরল। তাছাড়া, ১ শত ১৫ টি পুকুর বন্যার পাতিতে তলিয়ে গেছে। বেরিয়ে গেছে কয়েক লক্ষ টাকার মাছ। খড়িয়া কাজির চর ইউনিয়নে ৭ শত হেক্টর রোপা আমন পানিতে নিমজ্জিত ও ৬ শত হেক্টর আংশিকভাবে পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। ১০ হেক্টর পরিমাণ জমির বীজ ও নষ্ট হয়েছে। এব্যাপারে ভেলুয়া ইউপি চেয়ারম্যান ব্রক্ষপুদের নদের পানি যে ভাবে বাড়ছে এভাবে পানি বাড়া অব্যাহত থাকলে আমার ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রাম প্লাবিত হবে। এসকল গ্রামের প্রায় ১০ হাজার লোক কর্মহীনসহ বিভিন্ন অসুবিধায় পড়েছে। এছাড়া, কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও পানি উঠেছে। এতেকরে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যহত হচ্ছে।

শেরপুর টাইমস/ বা.স

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।