শ্রীবরদীতে ডিক্রীপ্রাপ্ত জমি উচ্ছেদ অভিযান স্থগিত

বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ডিক্রিপ্রাপ্ত জমি শেরপুরের শ্রীবরদী পৌরশহরে সরেজমিন দখল কার্যক্রম স্থগিত করেছেন যুগ্ম জেলা জজ প্রথম আদালত শেরপুর। বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ডিক্রিধারী জমি উচ্ছেদ কার্যক্রম স্থগিতের আদেশ চেয়ে সুজা মিয়া বুধবার (৩ জুলাই) শেরপুর জেলা দায়রা জজ আদালতে দরখাস্ত দাখিল করেন। এ দরখাস্তের ওপর সার্বিক পর্যব্ক্ষেণ করে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা দায়রা জজ মো. কামাল হোসেন উচ্ছেদ অভিযান ৭ (সাত) দিনের জন্যে স্থগিত আদেশ করেন। এ আদেশের কারণে উচ্ছেদ অভিযান স্থগিত করেন দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেড ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মঞ্জুর আহসান।

তথ্য সূত্রে জানা যায়, শ্রীবরদী পৌর শহরের ভায়াডাঙ্গা রোডের সাবেক সিএনজি ষ্ট্রেশনের পাশে ও উত্তর বাজারের জমি বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ডিক্রিপ্রাপ্ত হয়। যার মোকদ্দমা নং ০১/২০১৯, বাটো ডিং,০২/২০১৯ ও ০৩/২০১৯। ডিক্রিপ্রাপ্ত পক্ষকে ধার্য তারিখ সোমবার সরেজমিন দোকানপাট ও স্থাপনা সরিয়ে আংশিক জমি দখল প্রদান করা হয়। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এ বি এম এহছানুল মামুন এর নির্দেশক্রমে দোকানপাট ও স্থাপনা সরিয়ে এ দখল প্রদান করেন।
পরবর্তীতে আজ বুধবার (৩ জুলাই) দ্বিতীয় দিন চলামান উচ্ছেদ অভিযানে এলে অপর পক্ষ সুজা মিয়া শেরপুর জেলা যুগ্ম দায়রা জজ আদালতে উচ্ছেদ অভিযান স্থগিত চেয়ে অ্যাডভোকেট আরিফুল ইসলামের মাধ্যমে একটি দরখাস্ত দাখিল করেন। উল্লেখিত পক্ষের দাখিলকৃত দরখাস্তের প্রেক্ষিতে জেলা যুগ্ম দায়রা জজ মো. কামাল হোসেন উচ্ছেদ অভিযান ৭ (সাত) দিনের জন্যে স্থগিত করার নির্দেশ প্রদান করেন।
জেলা আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. তারিকুল ইসলাম ভাসানি বলেন, উচ্ছেদ অভিযান কার্যক্রমে তৃতীয় পক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত সুজা মিয়া উক্ত উচ্ছেদ অভিযান স্থগিতের আবেদন করলে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা দায়রা জজ বিষয়টি আমলে নিয়ে উচ্ছেদ অভিযান স্থগিতের আদেশ দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থগিতাদেশ চেয়ে দরখাস্ত প্রদানকারী অ্যাডভোকেট আরিফুল ইসলাম, সিনিয়র অ্যাডভোকেট মে. আব্দুর রউফ ও অ্যাডভোকেট আবু রায়হান আল বেরুনি।
এ ব্যাপারে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মঞ্জুর আহসান বলেন, মামলাটি দীর্ঘদিনের। আদালতের নির্দেশে ডিক্রিপ্রাপ্ত জমির ওপর দোকানপাট ও স্থাপনা সরিয়ে ডিক্রিপ্রাপ্তদের দখল দেয়ার কার্যক্রম ছিল। তবে আদালতের স্থগিতাদেশ পাওয়ায় আমরা অভিযান স্থগিত করেছি। এদিকে পৌরশহরের উত্তর বাজারের জমি উচ্ছেদ অভিযান দেখতে ঘটনাস্থলে আসেন শহরের শতশত লোক।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।