শ্রীবরদীতে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল লিখা মনি

শ্রীবরদীতে ইউএনও সেঁজুতি ধরের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের কবল থেকে রক্ষা পেল লিখা মনি নামে ১৪ বছরের এক কিশোরী । সে বালুর চর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং রানিশিমুল গ্রামের মন্টু মিয়ার মেয়ে।

জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার রাণীশিমুল গ্রামের মন্টু মিয়া’র মেয়ে লিখা মনি’র (১৪) সাথে শ্রীবরদী সদর ইউনিয়নের বাকসাবাইদ গ্রামের হানিফ উদ্দিনের ছেলে হারুন মিয়া’র সাথে বিয়ের আয়োজন চলছিল।

খবর পেয়ে ইউএনও ইউনিসেফ বাংলাদেশ উপজেলা কো-অর্ডিনেটর সাইফুল ইসলাম, স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে ঘটনাস্থলে পাঠায়। তারা মেয়ের বাবা-মা ও আতীয়স্বজনদের সাথে বাল্য বিয়ের কুফল সম্পর্কে আলোচনা করেন। মেয়ের বাবা মন্টু মিয়া নিজের ভূল বুঝতে পেরে বিয়ে ভেঙ্গে দেন।

এব্যাপারে ইউএনও সেঁজুতি ধর জানান, বাল্য বিয়ের খবর পেয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বার ও ইউনিসেফ কর্মীদের পাঠিয়েছিলম। তারা বাল্য বিবাহটি বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের