শেরপুর জেলা ছাত্রকল্যান পরিষদের নয়া কমিটি । । রকি সভাপতি, রিয়াদ সাধারণ সম্পাদক

দেশের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরপুর জেলা ছাত্রকল্যান পরিষদ এর নয়া কমিটি গঠন করা হয়েছে। আবু রায়হান রকিকে সভাপতি ও রাকিবুল ইসলাম রিয়াদকে সাধারণ সম্পাদক করে বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয় চত্ত্বরে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট এক বছর মেয়াদী এ কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সহ-সভাপতি রিয়াদ মোল্লা, আরমান হোসাইন, রেদওয়ান আহম্মেদ, আনোয়ার হোসেন আনু,স্রোত ভট্টাচার্য, আফরোজা নীরা ও শরীফ উদ্দীন; যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, ওমর আরাবী লিটন, আসলাম হোসেন, সোলায়মান কবির রাজু, জহিরুল ইসলাম জিহাদ, জিহাদুল ইসলাম জিহাদ, মাহবুবুর হাসান প্রত্যাশা, সেলিম আহমেদ শুভ, হাসিবুর হাসান ও জাকিয়া তানজিন মিনা; সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মনির হোসেন, জোবায়ের আহমেদ, রাকিবুল হাসান রনি, আহমেদ জাকি, মুহতাসিম আল মুঈদ, তানজিনা হক তিথি, আকরাম হোসেন, ইসরাত আরা অন্তরা, নওরিন জাহান, শ্যামল সাদমান, আলভি আক্তার সূচনা ও জান্নাতুল ফেরদৌস।

এছাড়া নতুন এ কমিটিকে সার্বিক পরামর্শদানের জন্য ৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি উপদেষ্টা কমিটি রয়েছে। উপদেষ্টা মন্ডলীরা হলেন, সেকশন অফিসার মোহাম্মদ খসরু আলম, মো. সাফি বিন দোহা সিফাত, হাসিন মাহতাব ফাহাদ, শেখ আব্দুল্লাহ আল মামুন, রাকিবুল হাসান হৃদয় ও আবু নাঈম।

সভাপতি আবু রায়হান রকি বলেন, আমাদের ঐতিহ্যবাহী শেরপুর জেলাটি আজও অনেকের কাছে প্রত্যন্ত অঞ্চল হিসেবে পরিচিত। অথচ শেরপুর জেলার সুনাম আজ দেশ ছাড়িয়ে বিদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। গারো পাহাড়ের পাদদেশিয় ও ভারত-বাংলার সিমান্তবর্তী এ অঞ্চলটির সুনাম-খ্যাতি অক্ষুন্ন রেখে দেশ বিদেশে তা ছড়িয়ে দিতে আমরা বদ্ধপরিকর।

সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রিয়াদ বলেন, আমরাই পারি আমাদের জেলার সুনাম অন্য সকল জেলার উপরের স্থানে তুলে নিতে। তাই আমাদের যেসকল বড় ভাই-বোনরা আজ উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তার চেয়ার অলংকৃত করে রেখেছেন, তাদের সাথে যোগাযোগ বাড়াতে হবে। আমাদের জেলার ছাত্র-ছাত্রীদের কল্যানে তাদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ নিয়ে, সে অনুযায়ী কাজ করতে আমরা সদা তৎপর। বিশেষ করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শেরপুর জেলার সকল শিক্ষার্থীদের সার্বিক সহযোগীতা করা সহ সুনামের সহিত সামাজিক উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থাকতে সকলের কাছে দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।