You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শেরপুরে স্ত্রীর মামলায় স্বামী কারাগারে

শেরপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারপিটের মামলায় নরেন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মন (২২) নামে এক পুলিশ কনস্টেবল স্বামীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। ১০ এপ্রিল সোমবার দুপুরে নরেন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মন আত্মসমর্পণপূর্বক জামিনের আবেদন জানালে উভয় পক্ষের শুনানী শেষে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্্েরট মোমিনুন্নেছা খানম তা নাকচ করে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। নরেন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মন নালিতাবাড়ী উপজেলার খালিশাকুড়া এলাকার মনিকান্ত চন্দ্র বর্ম্মনের ছেলে ও রাজধানী ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইনে কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত।
বাদী পক্ষের নিযুক্ত আইনজীবী এডভোকেট এএইচএম নুরে আলম হীরা মামলার আর্জির উদ্বৃতি দিয়ে জানান, আসামি পুলিশ কনস্টেবল নরেন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মন ২০১৫ সালের ১৪ মে হিন্দু বিবাহ নিবন্ধন বিধিমালা মোতাবেক রেজিস্ট্রিমূলে বিয়ে করেন ঝিনাইগাতী উপজেলা সদরের বিশ্বনাথ রায়ের মেয়ে মতি বিথি রানী রায়কে। কিন্তু বিয়ের পর থেকে তার প্রতি যৌতুকের জন্য অত্যাচার-নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি মতি বিথি রানী রায়ের কাছে ৩ লাখ টাকা যৌতুকের দাবি করে তা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে তাকে মারপিট করে নিজের বসতবাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় যৌতুকলোভী নরেন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মন। ওই ঘটনায় ১৬ মার্চ নালিতাবাড়ীর আমলী আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনের ৪ ধারা মোতাবেক নরেন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মনের বিরুদ্ধে একটি নালিশী মামলা দায়ের হলে আদালত তা আমলে গ্রহণ করেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!