You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শেরপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ করার দায়ে ১ ব্যক্তির ৩০ বছর সশ্রম কারাদন্ড

শেরপুরে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ করার দায়ে ৪ সন্তানের জনক আব্দুল মজিদ ওরফে লুদু মিয়া (৫৪) নামে এক ব্যক্তির ৩০ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড হয়েছে। সে সদর উপজেলার চক কুমরি গ্রামের কালু শেকের ছেলে। ৬ আগষ্ট রোববার দুপুরে শেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মুসলেহউদ্দিন ওই রায় ঘোষনা করেন। রায় ঘোষনার সময় আসামী উপস্থিত ছিল।

আদালত ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার পূর্বকুমরি গ্রামের বাসিন্দা ও বাজিতখিলা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণীর ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসা যাতায়াতের পথে প্রতিবেশী বখাটে লুদু উত্যক্ত করত। পরে কু-প্রস্তাব দিলে ঘটনাটি ওই মেয়ে তাঁর বাবা-মাকে জানায়। বাবা-মা গ্রামের মাতব্বরদের অভিযোগ করলে লুদু আরও বেপরোয়া হয়ে উঠে।

২০০৮ সালের ২৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে মাদ্রাসা থেকে বাড়ী ফেরার পথে অস্ত্র দেখিয়ে মেয়েটিকে লুদু অপহরণ করে । পরে একটি রিকশাযোগে তাঁকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। বাড়ীতে না ফেরায় মেয়েটির বাবা-মা মাদ্রাসায় গিয়ে স্থানীয়দের কাছ থেকে জানতে পারেন, তাদের মেয়েকে অপহরণ করেছে লুদু। অনেক খোঁজাখুঁজির পর মেয়েকে না পেয়ে তাঁরা ঘটনাটি পুলিশকে জানায়। কিন্তু থানা পুলিশ মামলা গ্রহণ করতে অস্বীকার করলে ওই বছর ২০ মার্চ মেয়ের মা বাদী হয়ে আদালতে লুদু ও তাঁর ভাই হাবিবর রহমানকে আসামী করে একটি মামলা করেন।

৮ মাস পর ২০০৮ সালের ৯ আগষ্ট পুলিশ চরশেরপুর ইউনিয়নের সাতানিপাড়া এলাকা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার ও অপহরণকারী মজিদ লুদুকে আটক করে। পরে তদন্ত শেষে শেরপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক দুলাল সরকার ২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। ভিকটিম, চিকিৎসকসহ আটজন মামলায় সাক্ষী দেন। সাক্ষ্য-প্রমাণে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রোববার বিচারক লুদুকে ৩০ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দেন।

রায়ের সত্যতা নিশ্চিত করে শেরপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুুলু বলেন, ন্যায় বিচার পাওয়ায় এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ সন্তুষ্ট হয়েছে।

শেরপুর টাইমস/বা.স

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!