শেরপুরে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রী, বিদ্যুৎস্পর্শে কৃষকের মৃত্যু

শেরপুর ৩১ জুলাই সোমবার দুপুরে পৃথকস্থানে পানিতে ডুবে এক স্কুল ছাত্রী এবং বিদ্যুৎস্পর্শে এক কৃষকের মৃত্যু ঘটেছে। সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নে ডোবার পানিতে পড়ে রিয়া মনি (১১) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

সে ভাতশালা গ্রামের গোলাম রসুলের মেয়ে এবং স্থানীয় নতুন কুঁড়ি বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। পুুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুপুরে খেলতে গিয়ে সে বাড়ীর পাশের ডোবার পানিতে পড়ে যায়। সাঁতার না জানা থাকায় এসময় সে পানিতে তলিয়ে যায়। খেলার সাথীরা ঘটনাটি তাঁর মা’কে জানালে তাৎক্ষণিকভাবে ডোবায় নেমে উদ্ধার করা হলে তাঁকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

শেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপাত কর্মকর্তা (ওসি) পরিদর্শক মো. নজরুল ইসলাম ও ভাতশালা ইউপি চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, শ্রীবরদী উপজেলার আটাকান্দা গ্রামে র বিদ্যুৎস্পর্শে মুক্তা মিয়া (৩০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। সে ওই গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে গরুকে গোসল করানোর জন্য তিনি মাঠে যান।

এসময় সেচযন্ত্রের পানি দিয়ে গরুকে গোসল করানো শুরু করলে তিনি বিদ্যুৎস্পর্শে ঘটনাস্থলেই মারা যান। খবর পেয়ে স্বজনরা এসে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে।

শ্রীবরদী থানার ওসি মো. রেজাউল করিম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের