You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শেরপুরে পরিত্যক্ত জমিতে সবজি চাষে ব্যাপক সাড়া

নাঈম ইসলাম: শেরপুরের সদর উপজেলায় কৃষিতে ব্যাপক সাফল্য দেখা দিয়েছে। কৃষকরা বাড়ির উঠানে, আঙিনায়, পরিত্যক্ত জমিতে, বাসা বাড়ির ছাদে শাক সবজি, ফল মুল ,তরিতরকারি চাষবাদে ঝুকে পড়েছে। এমনকি চরাঞ্চলের বিভিন্ন পতিত জমি, রাস্তার পাশ, উঁচুস্থানে কৃষকরা বিভিন্ন রকমের ফসলাদির আবাদ করছে।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, যে সমস্ত জমি গো-চারন ভূমি এবং পরিত্যক্ত ছিল সে সমস্ত জমিতে এখন কৃষকরা নানাবিধ শাক সবজি চাষ করে লাভবান হচ্ছে। উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সার্বিক সহযোগিতায় অল্প জমিতে একাধিক ফসল চাষাবাদ করে সাফল্য অর্জন করেছে উপজেলার কৃষকরা। চলতি মৌসুমে উপজেলার চরশেরপুর ইউনিয়নের কমপক্ষে ৫০ জন কৃষক তাদের বাড়ির উঠানে, আঙিনায় এবং পরিত্যক্ত জমিতে লেবু, পেঁপে, হলুদ, সিম, বড়বটি, লাউ, ঢেড়সহ বিভিন্ন শাক সবজি চাষাবাদ করে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে।

২নং চরশেরপুর ইউনিয়নের যোগিনীমুড়া গ্রামের আলমগীর আল-আমিন জানান, তার প্রায় ৫০ শতাংশ পতিত জমিতে পেঁপে ও লেবুর গাছ লাগিয়েছে।

মোবারকপুরের বাসিন্দা আরিফুর রহমান আকিব জানান, এ বছর এক বিঘা জমিতে লেবু বাগান করেছেন। এতে লেবু গাছের ফাঁকে ফাঁকে শিমসহ নানাবিধ তরিতরকারি চাষাবাদ করেছেন।

আখের মামুদ বাজারের বাসিন্দা জিয়া সরকার বলেন, আমি পরিত্যক্ত ৩০ শতাংশ জমিতে লেবু বাগান করেছি। এতে নিজেদের চাহিদা ও আর্থিক আয়ও হচ্ছে।

স্থানীয় বিএস মোস্তাফিজুর রহমান সোহাগ বলেন, কৃষকরা এখন তরিতরকারি চাষাবাদের উপর ঝুকে পড়েছেন। তরিতরকারি চাষাবাদে খরচ কম লাভ বেশি। তাছাড়া পরিত্যক্ত জমিতে একাধিক সবজি চাষ করা যায়। এতে লাভও বেশি।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!