You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শেরপুরে নবাগত নারী ও শিশু ট্রাইব্যুনাল বিচারকের সংবর্ধনা

শেরপুরে নবাগত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আখতারুজ্জামানকে সংবর্ধনা দিয়েছে জেলা আইনজীবী সমিতি। আজ সকালে সমিতির ২ নং বার ভবন মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ এম.এ নূর।

জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট রফিকুল ইসলাম আধারের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ সুলতান মাহমুদ, সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খন্দকার মাহবুবুল আলম রকীব, সাবেক সভাপতি এডভোকেট মোঃ সিরাজুল ইসলাম ও এডভোকেট একেএম মোছাদ্দেক ফেরদৌসী, নারী-শিশু আদালতের পিপি এডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এমকে মুরাদুজ্জামান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের বিচারক কামরুল হাসান খান, যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ-১ হারুন অর রশিদ, যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ-২ সুদীপ্তা সরকার, সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরকার হাসান শাহরিয়ার. নাহিদ সুলতানা ও বেগম মোমিনুনেন্নছা খানম, সহকারী জজ শারমিন সুলতানা সুমী ও বেগম মোসাঃ সানিয়া আক্তার, আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল কাদের খান, এডভোকেট এটিএম জাকির হোসেন, এডভোকেট মোখলেসুর রহমান আকন্দ, এডভোকেট ইমাম হোসেন ঠান্ডু, এডভোকেট সাখাওয়াত উল্লাহ তারা ও এডভোকেট আবুল মানসুর স্বপনসহ বর্তমান-সাবেক কর্মকর্তা-সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বক্তারা বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারকের শূন্যতা পূরণের মধ্য দিয়ে বিচারপ্রার্থী জনগণের দ্রুত ন্যায়বিচার পাওয়ার পথ সুগম হল। ইতোপূর্বের কর্মকালীন সময়ে তিনি যেহেতু সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে বিচারকার্য পরিচালনার সাক্ষর রেখেছেন, সেহেতু তিনি এখনও তার স্বকীয়তা বজায় রেখে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রেই সক্রিয় থাকবেন।

জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট রফিকুল ইসলাম আধার তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন, নবাগত জেলা ও দায়রা জজ এবং একই পদমর্যাদার নারী-শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারকের যোগদানের মধ্য দিয়ে পরিবর্তিত অবস্থায় আজ আমরা শতভাগ স্বচ্ছ বিচারকমন্ডলী নিয়ে কাজ করছি। কাজেই জেলায় বিচার ব্যবস্থায় নতুন মাত্রা যোগ হওয়ার পাশাপাশি ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে একটি মডেল প্রতিষ্ঠারও সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আইনজীবীদের দীর্ঘ কাঙ্খিত সিজেএম আদালত ভবন নির্মাণে বর্তমান কার্যকরী পরিষদের সদিচ্ছা ও সক্রিয়তার পাশাপাশি বিচার বিভাগের সহযোগিতাসহ অগ্রগতির তথ্য উপস্থাপন করলে উপস্থিত আইনজীবীরা তাতে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এছাড়া খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে একজন সৎ ও দক্ষ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পেতেও বারের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি আইনজীবীদের আশ্বস্ত করেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!