শেরপুরে ধর্ষণের শিকার সপ্তম শ্রেণিপড়ুয়া আদিবাসী শিক্ষার্থী হাসপাতালে ভর্তি

শেরপুরে ধর্ষণের শিকার হয়ে সপ্তম শ্রেণিপড়ুয়া এক আদিবাসী শিক্ষার্থী (১৩) জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে । । ৬ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই শিক্ষার্থীকে গুরুতর অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে পৌর শহরের কসবা কাঠগড় জিনিয়াস একাডেমির শিক্ষার্থী।

জানা যায়, শহরের কসবা কাচারীপাড়া এলাকার এতিম ওই কিশোরীকে স্কুলে যাতায়াতের পথে প্রতিবেশী রতন মিয়ার বখাটে ছেলে রকি মিয়া (২২) উত্যক্ত করত। এক পর্যায়ে গত মঙ্গলবার দুপুরে ওই কিশোরীকে স্কুল থেকে ফেরার সময় ফুঁসলিয়ে রকি ও তাঁর বোন রিয়া আক্তার অপহরণ করে ঢাকায় নিয়ে যায়। পরে রকি তাঁকে রাতভর ধর্ষণ করে।

বুধবার রাতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা রকির বাবাকে চাপ প্রয়োগ করলে ঢাকার বিশ্বরোড কাজীবাড়ী থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে শেরপুরে আনা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে অধিক রক্তক্ষরণে কিশোরী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, ওই ঘটনায় জিডি হয়েছিল। এখন মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। আসামীকে দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।