শেরপুরে ঘুমন্ত স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

শেরপুরে ঘুমন্ত স্ত্রীকে দেশীয় অস্ত্র ‘গারো দা’ দিয়ে জবাই করে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ডের রায় ঘোষণা করেছে আদালত। মৃত্যুদন্ড ঘোষিত সোহেল রানা শ্রীবরদী উপজেলার মাধবপুর গ্রামের ছাবেদ আলীর ছেলে। ৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে দন্ডপ্রাপ্ত সোহেল রানার উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. মোসলেহ উদ্দিন।

আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট ইমাম হোসেন ঠান্ডু মৃত্যুদন্ডের রায়ের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, রায়ে একইসাথে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড দেওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হিসেবে আমি এ রায়ে খুশী।

অতিরিক্ত পিপি জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে ২০১১ সালের ২৯ আগস্ট ভোরে শুশুরবাড়ীতে ঘুমন্ত স্ত্রী আফরোজা বেগমের গলায় ‘গারো দা’ চালিয়ে জবাই করেন স্বামী সোহেল রানা। গুরুতর অবস্থায় আফরোজাকে শ্রীবরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু ঘটে। শুশুরবাড়ীর লোকজন সোহেল রানাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় স্ত্রী হন্তারক সোহেল রানা ও তার বাবা-মা সহ চারজনকে আসামী করে নিহতের পিতা আফরোজ আলী বাদী হয়ে শ্রীবরদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে আদালতে সোহেল রানা স্ত্রী হত্যার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেন। তদন্ত শেষে পুলিশ সোহেল রানাকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। বাদী, জবানবন্দি গ্রহণকারী ম্যাজিস্ট্রেট সহ ৮ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মঙ্গলবার আদালত ঘাতক সোহেল রানার মৃত্যুদন্ড ঘোষণা করেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের