You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শেরপুরে খরা সহিষ্ণু বিনাধান-১৯ শস্যকর্তন মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

আউশ মৌসুমে আশার আলো ছড়াচ্ছে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) উদ্ভাবিত বিনাধান-১৯। মাত্র ১০০ দিনে কৃষকরা ফসল কেটে ঘরে তুলতে পারছেন। একরপ্রতি গড় ফলন মিলছে ৪০ থেকে ৫৫ মণ। খরাসহিষ্ণু হওয়ায় পানি সেচ লাগেনা বললেই চলে। তাছাড়া এ ধানের চাল খুবই চিকন হওয়ায় কৃষকরা আউশ আবাদে আশাবাদী হয়ে ওঠছেন। কৃষি কর্মকর্তারাও ধারণা করছেন, বিনাধান-১৯ জাতের কারণে দিন দিন আউশ আবাদী জমির পরিমাণ বাড়বে।

শেরপুরে আউশ মৌসুমে স্বল্পমেয়াদী খরসহিষ্ণু উচ্চ ফলনশীল বিনাধান-১৯ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ১আগস্ট বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার ঘিনাপাড়া এলাকায় এক শস্যকর্তন মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। পরিবর্তিত আবহাওয়া উপযোগী বিভিন্ন ফসল ও ফলের জাত উদ্ভাবন শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) নালিতাবাড়ী উপকেন্দ্র এবং সদর উপজেলা কৃষি অফিস এ মাঠ দিবসের আয়োজন করে।

স্থানীয় কৃষক নূরুল ইসলামের প্রদর্শনী প্লটের এক একর ২০ শতক জমির বিনাধান-১৯ কেটে একর প্রতি শুকনা অবস্থায় ৪০ মণ করে ধান পাওয়া যায়। মাত্র ৯৭ দিনে এমন ফলন মিলেছে এবং জমিতে কোন ধরনের সেচ দিতে হয়নি। বৃষ্টির পানিতেই এমন ফলন হয়েছে। এ শস্যকর্তন মাঠ দিবসে উপস্থিত ছিলেন প্রধান অতিথি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ময়মনসিংহ অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ মো. আসাদুল্লাহ। শেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের (ডিএই) উপ-পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে মাঠ দিবসে অন্যনান্যের মাছে বক্তব্য রাখেন বিনা নালিতাবাড়ী উপকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসরিন আকতার, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা পিকন কুমার সাহা, কৃষক মিজানুর রহমান, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মজিবর রহমান প্রমুখ। মাঠ দিবসে এলাকার দেড় শতাধিক কৃষক-কৃষানী অংশগ্রহণ করেন।

শেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের (ডিএই) উপ-পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন জানান, আউশ আবাদ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিনা ও ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট স্বল্পমেয়াদী নতুন নতুন ধানের জাত উদ্ভাবন করছে। বিনাধান-১৯ খরাসহিষ্ণু হওয়ায় পানি সেচ লাগেনা বললেই চলে। তাছাড়া এ ধানের চাল খুব চিকন হয়। ফলনও অন্যান্য জাতের চাইতে বেশী। একরপ্রতি গড় ফলন ৪০ থেকে ৫৫ মণ। আউশ মৌসুমে বিনাধান-১৯ খুবই জনপ্রিয় হবে বলে তারা আশা প্রকাশ করছেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!