শেরপুরে কৃষক মেলা উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন

কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য ও কৃষিভর্তুকি এবং সহায়তা নিশ্চিতকরণে প্রচারাভিযান কর্মসূচির অংশ হিসেবে শেরপুরে কৃষকমেলা উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এমপাওয়ারিং স্মলহোল্ডার টু স্ট্রেংদেন ডেমোক্রেটিক লোকাল গর্ভান্যান্স বা ক্ষমতায়ন প্রকল্পের আওতায় রবিবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে শেরপুর প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আরডিএস-এর আঞ্চলিক সমন্বয়কারি উজ্জল কুমার দত্ত রায়।

এসময় তিন জানান, ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক যাতে সামষ্টিকভাবে স্থানীয় সরকারি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সর্ম্পক স্থাপন, দাবি-দাওয়া উপস্থাপন, অর্থনৈতিক ও সামাজিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাংগঠনিকভাবে অধিকতর সক্রিয় হতে পারেন, সে লক্ষ্যে ক্ষমতায়ন প্রকল্পের মাধ্যমে নানামূখী কর্মকান্ড পরিচালিত হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে আগামী ২-৫ ডিসেম্বর শেরপুর জেলার ৪ উপজেলায় পর্যায়ক্রমে ৪টি কৃষক মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) নকলা উপজেলার বাইপাস মোড় সংলগ্ন পাইশকা এলাকায়, ৩ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সদর উপজেলা ভাতশালা ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণ, ৪ ডিসেম্বর বুধবার শ্রীবরদী উপজেলার বটতলা মোড়ে এবং বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) ঝিনাইগাতী উপজেলার শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম মাঠে এসব কৃষক মেলা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি কৃষক মেলায় স্থানীয় কৃষক, কৃষিপণ্য উৎপাদক সমিতি ও কৃষি বিভাগের ৮টি প্রদর্শনী স্টলের মাধ্যমে কৃষকদের উৎপাদিত নানা কৃষি ফসল এবং কৃষি প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হবে। এছাড়া প্রতিটি কৃষক মেলা উপলক্ষে র‌্যালি এবং মেলা প্রাঙ্গণে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে শেরপুর প্রেসক্লাব সভাপতি মো. শরিফুর রহমানের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মাঝে আরও বক্তব্য রাখেন ক্ষমতায়ন প্রকল্পের মিডিয়া অ্যাডভোকেসি পার্টনার ‘সমষ্ঠি’ পরিচালক মীর সাহিদুল আলম, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দন, জেলা কৃষিপণ্য উৎপাদক এসোসিয়েশন সভাপতি মো. ইন্তাজ আলী, সদস্য নাজমা বেগম প্রমূখ।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ট্রেডক্রাফট একচেঞ্জ, ক্রিস্টিয়ান এইড ও সলিডারিটি ইন্টারন্যাশনালের আর্থিক সহায়তায় শেরপুর, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, ময়মনসিংহ ও সাতক্ষীরা জেলার ১৯টি উপজেলায় ক্ষমতায়ন প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। এতে মাঠপর্যায়ে উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে রুরাল ডেভেলপমেন্ট সংস্থা (আরডিএস), সুশীলন এবং গণ উন্নয়ন কেন্দ্র। শেরপুরের ৪ উপজেলায় প্রায় সাড়ে ৫ হাজার কৃষককে সংগঠিত করে ১৭৩টি কৃষিপণ্য উৎপাদক এসোসিয়েশন গঠন করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।