শেরপুরে আদা, লং, গোলমরিচ ও কালোজিরা নিয়ে গুজব!

শেরপুরে হঠাৎ করেই আদা, লং, গোলমরিচ ও কালোজিরা দিয়ে চা বানানোর গুজব শুরু হয়েছে। কেউ কেউ বলছে এসব দিয়ে চা খেলে নাকি করোনা ভাইরাস হবে না। এমন গুজবে দিশেহারা সচেতন মানুষ। বৃহস্পতিবার  (২৬ মার্চ) সন্ধ্যা থেকে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন পোস্টে তুলকালাম শুরু হয়েছে।

শেরপুর শহরের সজবরখিলা এলাকার বাসিন্দা রবিন মিয়া বলেন, আমাকে আমার দুই বন্ধু ফোন করে এসব দিয়ে চা খেতে বলেছে। বন্ধুরা নাকি ফেসবুকে দেখছে আদা, লং, গোলমরিচ ও কালোজিরা দিয়ে চা খেলে করোনা ভাইরাস হবে না। এজন্য আমাকে বলেছে।

শ্রীবরদী উপজেলার কর্ণঝোড়া এলাকার বাসিন্দা মোবারক হোসেন মুঠোফোনে শেরপুর টাইমস’র স্টাফ রিপোর্টার শাকিল মুরাদকে জানান, তার ফেসবুকের অনেক বন্ধু তাকে ম্যাসেজ দিচ্ছে; ফেসবুকে এমন একটা খবর ‘বগুড়ায় একটা শিশু জন্মের পর বলেছে নাকি আদা, গোল মরিচ আর কালোজিরা খেলে করোনা ভাইরাস হবে না। এরপর শিশুটা মারা যায়।’ এমন ম্যাসেজের পর আবার লেখছে তারা এসব দিয়ে দিয়ে চা খেয়েছে। এজন্য মোবারককে খেতে বলেছে।

শ্রীবরদী উপজেলার হারিয়াকোণা এলাকার বাসিন্দা শিক্ষার্থী সোহাগ মিয়া বলেন, এটা সম্পূর্ণ গুজব, মিথ্যাচার। এগুলো ঠিক না। সবাই সতর্ক থাকুন, গুজবে কান দেবেন না। গুজব বড় ধরণের মিথ্যাচার, বড় ধরনের পাপাচার। গুজব ছড়াবেন না, গুজব বিশ্বাসও করবেন না।

শেরপুর জেলার গণমাধ্যমকর্মী মহিউদ্দিন সোহেল শেরপুর টাইমসকে বলেন, আমাকে অনেকজন ফোন করে এই গুজবের কথা বলেছে। আমি রীতিমত অবাক হই, বাংলাদেশের এমন পরিস্থিতিতে কে বা কারা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এ গুজবটি রটিয়ে দিয়েছে। আমি সবাইকে গুজবে কান না দিতে আহ্বান করেছি। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে সকলের সচেতনতা ও আল্লাহর কাছে দোয়া প্রার্থনা ছাড়া কোন উপায় নেই।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এই গুজব রোধে শেরপুর জেলার আরেক গণমাধ্যমকর্মী ইমরান হাসান রাব্বী তার নিজের টাইমলাইনে লিখেছেন, ‘সত্য মিথ্যা যাচাই আগে, ইন্টারনেটে শেয়ার পরে…। করোনা প্রতিরোধে হেলিকপ্টার দিয়ে সারা দেশে এন্টি করোনা ছিটানো হবে – এটা গুজব। গুল মরিচ, কালো জিরা ও মধু খেলে করোনা প্রতিরোধ হবে – এটা গুজব। কোন সদ্য ভূমিষ্ঠ শিশু করোনা থেকে বাঁচতে, আজানের কথা বলেই মারা গেছে – এটাও গুজব। করোনা প্রতিরোধে সচেতন হোন, গুজব থেকে সাবধান হোন। বিপদ থেকে বাঁচতে আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের জন্য নামাজ পড়তে পারেন, তবে বাড়িতে বাড়িতে আজান দিয়ে সবাই একসাথে নফল নামাজ পড়তে হবে, এমন গুজব ছড়ানো থেকে বিরত থাকুন।’

উল্লেখ্য- আদা, লং, গোলমরিচ ও কালোজিরা দিয়ে চা খেলে করোনা ভাইরাস হবে না এমন কথা নাকি জন্মের ৫ মিনিট পর এক শিশু এ কথা বলে মারা যায়। এমন গুজব নিয়ে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তোলপার। কেউ বলছেন বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সন্ধ্যায় শিশুটি জন্ম হয়েছে বগুড়ায় আবার কেউ বলছেন রংপুরে। এমন বিভ্রান্ত তথ্য দিয়ে মানুষকে আতঙ্কের মধ্যে ফেলেছে একটি মহল। যা গুজব বলে ইতোমধ্যে প্রমাণিত হয়েছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।