শেরপুরে অনুর্ধ্ব-১২ ক্রিকেট কার্ণিভাল

শেরপুরে ‘শৃঙ্খলার জন্য ক্রিকেট, খেলো এবং শেখো ক্রিকেট’ শ্লোগানে রবিবার (৭ জুলাই) দিনব্যাপী অনুর্ধ্ব-১২ ক্রিকেট কার্ণিভাল হয়েছে। শেরপুর সরকারি কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত এ ক্রিকেট কার্ণিভালে শহরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১২ বছর বয়সী ৩৪ জন ক্ষুদে ক্রিকেটার ৪টি দলে ভাগ হয়ে অংশগ্রহণ করে। বিসিবি’র সহায়তায় জেলা ক্রীড়া সংস্থা এ ক্রিকেট কার্নিভালের আয়োজন করে। দেশের ৪টি প্রধান নদী পদ্মা, মেঘনা, যমুনা ও ব্রহ্মপুত্র-এ চারটি নামে বিভক্ত হয়ে রাউন্ড রবীন লীগ ভিত্তিতে ক্ষুদে ক্রিকেটাররা নির্ধারিত ৮ ওভর করে খেলায় অংশগ্রহণ করে। সর্বোচ্চ পয়েন্টধারী দুই দল পরে ফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। ফাইনালে টস জিতে ব্যাটিং করা পদ্মা দল নির্ধারিত ৮ ওভারে ৫ ইউকেটে ৫২ রান করে। জবাবে ব্রহ্মপুত্র দল নির্ধারিত ৮ ওভারে ২ উইকেটে ৫৪ রান করে জয়লাভ করে। ক্রিকেট কাণিভালে অংশ নেওয়া ক্ষুদে ক্রিকেটার ঋক মালাকার ও উৎসব জানায়, খেলায় অংশ নিয়ে তাদের খুব ভালো লেগেছে। তারা সবাই খেলেছেন, আনন্দ করেছেন। এতে খুব মজা পেয়েছেন।

আনন্দমুখর পরিবেশে সকালে এ ক্রিকেট কার্ণিভালের উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জন কেনেডি জাম্বিল। এসময় ক্ষুদে খেলোয়াড়দের মাঝে বিসিবি’র প্রদত্ত জার্সি ও ক্যাপ বিতরণ করা হয়। বিকেলে খেলা শেষে অংশগ্রহণকারি প্রত্যেক ক্ষুদে ক্রিকেটারের হাতে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন শেরপুর সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আব্দুর রশিদ। এসময় জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নাজিমুল হক নাজিম, কোষাধ্যক্ষ খোরশেদ আলম, ময়মনসিংহ বিভাগীয় ক্রিকেট আম্পায়ার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি হাকিম বাবুল, বিসিবি’র জেলা ক্রিকেট কোচ রাফিউল ইসলাম রুমেল, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সৈয়দ রবিউল করিম মনি, সচিব মো. জিন্নত আলী, ডিএফএ সহ-সম্পাদক মাহবুব রানা সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিসিবি’র জেলা ক্রিকেট কোচ রাফিউল ইসলাম রুমেল বলেন, শিশুদের মাঝে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি এবং ক্ষুদে ক্রিকেট প্রতিভা বাছাই করাই এ ক্রিকেট কার্ণিভালের মূল লক্ষ্য। অনুর্ধ্ব-১২ ক্রিকেট কার্ণিভালের খেলায় প্রতি দলে ৮ জন খেলোয়াড় অংশ নেয়। জোড়ায় জোড়ায় ব্যাটসম্যান মাঠে নেমে ২ ওভার করে ব্যাট করার সুযোগ পায়। সকলকেই অন্তত: এক ওভার করে বল করতে হয়। প্রতিবার ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার জন্য ২ রান করে কাটা যায় এবং ‘ওয়াইড’, ‘নো-বল’-এ দুই রান করে প্রতিপক্ষে দলীয় রান যোগ হলেও এজন্য কোনরকম নতুন বল করতে হয়না। এতে ‘এলবিডব্লিও’ কোন আউট নেই। শিশুরা ক্রিকেট কার্ণিভালের খেলাগুলো দারুণ উপভোগ করেছে। এ ক্রিকেট কাণিভাল থেকে ১৫ জন ক্ষুদে ক্রিকেটারকে বাছাই করা হয়েছে। যাদের পরবর্তিতে সপ্তাহব্যাপী বিশেষ প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।