শেরপুরের গানের পাখি রিয়ার পথচলা

শেরপুরের সঙ্গীত জগতে যিনি ইতোমধ্যেই অসামান্য অবদান রেখে দর্শক হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন সেই উদীয়মান কিশোরী কন্ঠশিল্পী নুসরাত জাহান রিয়া এবার তার ভক্তশ্রোতাদের জানিয়েছেন নতুন খবর।

রিয়া জানান, মঞ্চে দর্শক মাতানোর পাশাপাশি আসছে কোরবাণী ঈদে বেশ কয়েটি বেসরকারী টেলিভিশনে লাইভ অনুষ্ঠানে আসছেন। তিনি শ্রোতাদের সাথে সরাসরি যুক্ত হয়ে নানা প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পর নতুন নতুন গান পরিবেশন করে দর্শক হৃদয়ে নতুন করে নাড়া দিবেন। তিনি ছোটকাল তথা ৮ বছর বয়স থেকেই সঙ্গীত চর্চা করে আসছেন। স্থানীয় পাতাবাহার খেলাঘর আসরের মাধ্যমে সঙ্গীত জগতে প্রবেশ করেন তিনি। এরপর থেকে লেখাপড়া করার পাশাপাশি সঙ্গীত জগতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। রিয়া মুলত ফোক গানই বেশি পরিবেশন করে থাকেন। পাশাপাশি মঞ্চে সব ধরনের গান পরিবেশন করেন। বছরের সব সময়ই নিজ জেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ষ্টেজ প্রোগ্রাম করে আসছেন। তারই ধারাবাহিকতায় ২০১৬ সালের বিটিভির সুবর্ণ জয়ন্তী পুরুষ্কার পেয়েছেন। জাতীয় লোক সংঙ্গীত পুরুষ্কারসহ শিশু পুরুষ্কার জিতে নিয়েছেন ৭ বার। তার প্রথম উস্তাদ আশিকুর রহমান ও দ্বিতীয় উস্তাদ সদ্য প্রয়াত আতিকুর রহমান।

রিয়া সব সময়ই নতুন ধরনের গান গাইতে পছন্দ করেন। তার নিজের পছন্দের তালিকায় রয়েছে, শাহ আব্দুল করিমের দিবা নিশি ভাবি যারে, সোনা বন্ধুর গান শুনিয়া, আমার হৃদয় পিঞ্জিরার পোষা পাখিরে, অতিতের কথাগুলো পুরোনো স্মৃতিগুলো মনে মনে রাইখো…আমিতো ভাল না ভাল লইয়াই থাইকো এসব গান। তাছাড়া সব ধরনের গানই রিয়া গেয়ে থাকেন।

রিয়া ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় বাণিজ্য শাখায় পাশ করে এইচএসসিতে ভর্তির প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তিনি জানান তার ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা। তিনি বলেন, সঙ্গীত জগতে আমি কেবলমাত্র পা রেখেছি। আমি সকলের দোয়া এবং ভালবাসা নিয়ে অনেক দুর যেতে চাই। তিনি বাণিজ্য শাখায় লেখাপড়া করলেও সঙ্গীত বিষয়ে অনার্স মাষ্টার্স করার চিন্তাভাবনার কথা জানান। রিয়া সঙ্গীত জগতে জায়গা করে নিতে সকল ভক্তবৃন্দের দোয়া কামনা করেছেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।