You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

শিশু সীমান্তকে বাঁচাতে হাত বাড়িয়ে দিন

ডেস্ক রিপোর্ট : ফুট ফুটে চেহারার এই ছেলেটির নাম সীমান্ত সাহা। বয়স মাত্র আড়াই বছর পেরিয়েছে। দুষ্টুমি আর ভালোবাসায় ভরে থাকত ঘর থেকে বাইরে। কিন্তু ভাল-মন্দ কিছু বোঝার আগেই সে এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

সে এখনো ভালো করে কথাই বলতে পারে না। সঙ্গে নেই সেই দূরন্তপনা। তীব্র মাথা ব্যথা ও শারীরিক সমস্যা নিয়ে ঠাঁই হয়েছে বিছানায়। আর এরই মধ্যে সে আক্রান্ত হয়েছে ব্রেইন টিউমার রোগে।

খুলনা গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এম এ হাসান পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে জানিয়েছেন, তাকে ঢাকার নিউরো সার্জারি হাসপাতালে আগামী ৭-১০ দিনের মধ্যে অস্ত্রপাচারের মাধ্যমে চিকিৎসা দিতে হবে। তা না হলে তার জীবন বাঁচানো যাবে না। এ জন্য ব্যয় হবে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা।

শিশুর বাবা সুশান্ত সাহা একজন দোকান শ্রমিক। গরিব বাবার পক্ষে এতো ব্যয় বহন করা কষ্টসাধ্য। ইতিমধ্যে বিভিন্নভাবে নিজেদের সঞ্চিত ও ধারদেনা করে আড়াই লাখ টাকা যোগাড় করা সম্ভব হয়েছে। চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন আরো আড়াই লাখ টাকা। তা তাদের পক্ষে যোগাড় করা সম্ভব নয়। ফলে অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছে না।

সীমান্তের চাচা এসএ টেলিভিশন ও রাইজিংবিডির গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি বাদল সাহা জানান, গত ১৫ দিনে আগে সীমান্তর মাথা ব্যথা শুরু হয়। এ সময় গোপালগঞ্জে চিকিৎসা নিলেও ভাল না হওয়ায় খুলনার গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শিশু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এম এ হাসানের অধীনে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত বলে জানান। তাদের অস্বচ্ছল পরিবারের পক্ষে ব্যয়বহুল এ চিকিৎসা করা সম্ভব নয়। ছোট শিশুটিকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের সাহায্যের হাত বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : বাদল সাহা, হিসাব নম্বর-১০০১২১০০০২৫৬৮৬, এক্সিম ব্যাংক, টুঙ্গিপাড়া শাখা, গোপালগঞ্জ।

বিকাশ নম্বর : ০১৭১৬-০৩২৬৪৭, ০১৯১২-৫৪৪১৪৩।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!