শহীদ নাজমুল আহসানকে স্বাধীনতা পদক প্রদান করায় শেরপুরে আনন্দ শোভাযাত্রা

শহীদ নাজমুল আহসানকে এ বছর স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করায় আনন্দ শোভাযাত্রা করা হয়েছে শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে। আজ ২৩ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুর বারোটার দিকে ‘শহীদ নাজমুল আহসান স্বাধীনতা পদক প্রাপ্তি উদযাপন পরিষদ’ এর আয়োজনে এ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।
পরিষদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউল হোসেন মাস্টার ও সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমানের নেতৃত্বে এ শোভাযাত্রায় নাজমুল স্মৃতি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, শহীদ আব্দুর রশিদ মহিলা কলেজ, হিরন্ময়ী উচ্চ বিদ্যালয়, আব্দুল হাকিম স্মৃতি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, তারাগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, তারাগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও গড়কান্দা পৌর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নেন। র‌্যালিটি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ ও শহীদ মিনার চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ করে। এছাড়াও শাহী কবরস্থানে শহীদ নাজমুল আহসানের কবর জিয়ারত করা হয়।
নালিতাবাড়ী উপজেলার বরুয়াজানি গ্রামের সন্তান ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহের শিক্ষার্থী নুরুদ্দিন মোহাম্মদ (এনএম) নাজমুল আহসান এর নেতৃত্বে ’৭১-এর ৫ জুলাই পাক হানাদারদের প্রবেশ ঠেকাতে কাটাখালী ব্রীজের সফল অপারেশন করা হয়। ৬ জুলাই ভোরে পার্শ্ববর্তী রাঙামাটি গ্রামের খাটিয়া বিলে সহযোদ্ধাদের বাঁচাতে গিয়ে পাকহানাদারদের সাথে সম্মুখযুদ্ধে শহীদ হন তিনি।

তাঁকে বাঁচাতে এসে তারই চাচা এবং ভাইপো আলী হোসেন ও মোফাজ্জল হোসেন শহীদ হন। শহীদ নাজমুলের স্মৃতি রক্ষায় বাকৃবিতে একটি ছাত্রাবাস ও নালিতাবাড়ীতে একটি কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়। মুক্তিযুদ্ধকালীন তাঁর বীরত্বগাঁথা ইতিহাস নিয়ে রচিত হয় গ্রন্থ ‘জল জোসনায় নাজমুল’। এছাড়াও বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে তাঁকে প্রদান করা হয় মরণোত্তর সম্মাননা।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের