যক্ষ্মা প্রতিরোধে শেরপুরের সাংবাদিকদের সাথে নাটাবের মতবিনিময়

যক্ষ্মা রোগ প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে শেরপুরে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ (৬ ডিসেম্বর) বৃহস্পতিবার দুপুরে নিউ মার্কেটস্থ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং মিলনায়তনে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষা নিরোধ সমিতি (নাটাব) এর শেরপুর জেলা শাখার আয়োজনে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শেরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শরিফুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি জিএম আফসার বাবুল।

নাটাবের শেরপুর জেলা শাখার সভাপতি হারুনুর রশিদ দুদুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মোরাদের সঞ্চালনায় মূল বক্তব্য রাখেন নাটাবের ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রতিনিধি মো. কামরুজ্জামান। এসময় জেলার প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক্স, অনলাইন গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা বলেন, সচেতনতার মাধ্যমে যক্ষ্মার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে না পারলে এটি ভয়াবহ হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে। যক্ষ্মা এমন একটি রোগ, যা যথাযথ চিকিৎসা না নিলে একজন রোগী থেকে বছরে ১০ জনের মধ্যে ছড়ায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুসারে বাংলাদেশ যক্ষ্মার ঝুঁকিতে বিপজ্জনক অবস্থানে রয়েছে। সেজন্যে প্রত্যেককেই যক্ষ্মার বিরুদ্ধে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সচেতন হতে হবে। দেশে সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সমন্বিত উদ্যোগ ও প্রচেষ্টায় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি আশাব্যঞ্জক হলেও লক্ষ্য অর্জনে আরো বেশি সরকারি উদ্যোগ প্রয়োজন।এক নাগাড়ে দুই সপ্তাহ বা তার অধিক সময়ের কাশি যক্ষ্মার প্রধাণ লক্ষণ। নিয়মিত ও পূর্ণ মেয়াদের চিকিৎসায় যক্ষ্মা সম্পূর্ণ ভালো হয়।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের