মাদক ব্যবসায়ীরা স্বাভাবিক জীবনে না ফিরলে কঠোর ব্যবস্থা: আইজিপি

মাদক ব্যবসায়ীরা স্বাভাবিক জীবনে না ফিরলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী জানান, মাদক ছেড়ে কেউ যদি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায়, তাহলে তাদের সুযোগ দেয়া হবে। আর মাদক ব্যবসায়ীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে না আসলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আজ সোমবার দুপুরে ময়মনসিংহ নগরীর সার্কিট হাউজ রোডে পুলিশ অফিসার্স মেসসহ ৯টি স্থাপনার উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন আইজিপি। পরে বিকেলে পুলিশ লাইন্সে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন আইজিপি।

ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী আরও বলেন, এখনো জঙ্গি বিরোধী কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এ ব্যাপারেও আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স। ইতিমধ্যেই কক্সবাজারে ১২০ জনের বেশি মাদক ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করেছে। কক্সবাজারের মতো আরও কয়েকটি জেলায় মাদক ব্যবসায়ী, গডফাদার ও মাদকের সাথে সম্পৃক্তরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চাচ্ছেন, তাদেরকেও আমরা সুযোগ দিবো।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে ২০৪১ সালের মধ্যে একটি সুখী ও সমৃদ্ধ সোনার বাংলা দেখার স্বপ্ন দেখিয়েছেন। এটি তখনই স্বার্থক হবে যখন আমরা মাদক ও জঙ্গিবাদ থেকে পরিত্রাণ পাবো। তখন বাংলাদেশকে নিরাপদ আবাস হিসেবে পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠিত করতে পারব।

অনুষ্ঠানে রেঞ্জ ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঁঝি, অতিরিক্ত ডিআইজি ড. আক্কাস উদ্দিন ভূঁইয়া, জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস, পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক ইকরামুল হক টিটু, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও ময়মনসিংহ বিভাগের সকল পুলিশ সুপার ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

আইজিপি ময়মনসিংহ জেলা এসপি অফিস ভবন, পুলিশ লাইন্স ব্যারাক ভবন-২, পুলিশ অফিসার্স মেস-১ ও পারফরমেন্স ইভ্যাল্যুসান সফটওয়্যার উদ্বোধন করেন এবং পুলিশ টেলিকম ভবন, পাগলা থানার অফিসার্স ইনচার্জের কোয়ার্টোর ও ডরমেটরি, ময়মনসিংহ জেচলার মাল্টিপারপাস ড্রিলশেড, পুলিশ হাসপাতাল ডরমেটরির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।