মাত্র ছয় বছর বয়সে মোবাইল এপ্লিকেশন তৈরী করলো শেরপুরের মেয়ে রাইশা

সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে মোবাইল এপ্লিকেশন তৈরী করেছে ছয় বছরের শেরপুরের মেয়ে রাইশা রহমান।

রাইশা রাহমান শেরপুর শহরের নবীনগর এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ লুৎফর রহমান নতূন এবং কামরুন নাহারের সর্বকনিষ্ঠা কন্যা।

রাইশার বয়স মাত্র ছয় বছর। যে বয়সে সহপাঠিদের সাথে খেলাধুলা করার কথা, সে বয়সে রাইশা তৈরি করেছে “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান” নামের একটি অ্যাপ যা ইতিমধ্যে প্লে স্টোরে রয়েছে।অ্যাপটি ওপেন করলেই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ বেজে উঠবে।

সেই সাথে অ্যাপটিতে রয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে জানার মতো কিছু তথ্য।
Download App http://tiny.cc/67vs4
উল্লেখ্য যে, রাইশা রহমান মাত্র এক বছর বয়স থেকে কম্পিউটারের যে কোন ভার্সনের উইন্ডোস অপারেট করতে পারতো। বিভিন্ন গেম অনায়সেই খেলতে পারতো।তার এ প্রতিভা দেখে সকলেই বিস্মিত হত।

ট্রেইনার জোবায়ের হোসেন বলেন, “রাইসার ট্রেইনার হিসাবে আমি সত্যিই খুব গর্ব বোধ করছি এবং আমাদের Jubayer App Academy প্রতিষ্ঠা কিছুটা হলেও স্বার্থক এবং গর্বিত।”

প্রোগ্রামিং বা অ্যাপ ডেভলোপমেন্টকে যারা ভয় পাও; অনেক সম্ভাবনা তোমার মধ্যে থাকার পরেও “পারবো না” বলে বসে থাকো; চার বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধু নামমাত্র ডিগ্রী নিয়ে নিজেকে সুপিরিয়র ভাবো… শুধু তোমাদের জন্যই না,

সারা বিশ্বের জন্য রাইশাকে দিয়ে চ্যালেঞ্জ করে গেলাম যে, স্কিল ডেভলোপমেন্টের কোন বয়স- ধর্ম নাই। প্রচন্ড ইচ্ছাশক্তি থাকলে সব সম্ভব, সব।

প্রতিভাবান মেয়েটির প্রতি সঠিক যত্ন নিতে পারলে ভবিষ্যতে বাংলাদেশকে বিশ্বের মাঝে তুলে ধরতে পারবে।

রাইশা রহমান বর্তমানে উত্তরা প্রাইম ব্যাংক ইংলিশ মিডিয়ামে স্কুলে প্রথম শ্রেণীতে পড়াশোনা করছেন।

রাইশা রহমান ভবিষ্যতে একজন মোবাইল এপ্স ডেভেলপার হতে চায়।

 

 

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।