You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

বিয়ে বিচ্ছেদও দমাতে পারিনি নালিতাবাড়ীর মেয়ে তাসলিমাকে

বিয়ে বিচ্ছেদও দমাতে পারিনি নালিতাবাড়ীর মেয়ে তাসলিমাকে । স্বামীর নানা নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে প্রতিবাদ করায় ঘটে যায় বিয়ে বিচ্ছেদ । কিন্তু তাতেও হার মানেননি তাসলিমা। স্বামীর নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যামে শুরু করেন জীবন যুদ্ধ । আর তাই জীবন যুদ্ধে হার না মানা সেই তাসলিমাই এখন জয়িতা।

তাসলিমার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার গোবিন্দনগর এলাকার মৃত আব্দুল খালেকের মেয়ে তাসলিমা বেগম (২৯)। প্রায় ১৩ বছর আগে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজলায় ফরিদ আহমেদর সঙ্গে বিয়ে হয় তাসলিমা বেগমর। কিন্তু বিয়ের কয়েক বছর যেতে না যেতেই স্বামীর নানা রকমের নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছিল তাকে। তবে নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় স্বামী তাকে তালাক দিয়ে দেয়। এতে সে অথৈয় দুঃখের সাগরে ভাসতে থাকেন।

পরে তিনি ব্র্যাকের সহযোগিতা নিয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে দেনমোহর টাকা দাবি করে মামলা করেন। পরে তার স্বামী বাধ্য হয়েই দেহমোহরের ১ লাখ ২০ হাজার টাকা দেন। সেই টাকা দিয়ে তাসলিমা নতুনভাবে নিজেকে স্বাবলম্বী করে তোলা চেষ্টা করেন। তিনি সেলাই মেশিন কিনেন। বাবার বাড়িতেই তাসলিমা একটি জামা কাপড় তৈরি ও বিক্রির দোকান দেন। আস্তে আস্তে তিনি স্বাবলম্বী হতে থাকেন। এরই প্রেক্ষিতে এবছর ‘নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যামে জীবন শুরু করেছেন এমন নারী’ হিসেবে তাসলিমা বেগম নালিতাবাড়ী উপজেলায় জয়িতা সম্মাননা পেয়েছেন।

এ বিষয়ে তাসলিমা বেগম বলেন, স্বামীর অন্যায় নির্যাতন মুখ বুজে সহ্য করিনি। প্রতিবাদ করেছি। দেশে সকল নির্যাতিত নারীদের অন্যায়ের প্রতিবাদ করা উচিত।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!