বিশ্বের যে স্থানে নারীদের প্রবেশে রয়েছে নিষেধাজ্ঞা!

এই যুগে নারী-পুরুষের মধ্যে আর কোনো ভেদাভেদ করা হয় না। সব ক্ষেত্রেই থাকে সমান অধিকার।  কিন্তু এখনো পৃথিবীতে এমন অনেক স্থান বা প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেখানে নারী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেই স্থানগুলোতে নারীদের প্রবেশ একদমই নিষেধ। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই স্থানগুলো সম্পর্কে-

মাউন্ট ওমিন
২০০৪ সালে বিশ্ব হেরিটেজের অংশ হিসেবে চিহ্নিত হয়। তবু এখন পর্যন্ত জাপানের মাউন্ট ওমিনে নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। আর এর কারণ হলো,  নারীদের উপস্থিতি পুরুষদের মনে লোভ সৃষ্টি করতে পারে। যদিও এই নিয়ে বিতর্ক প্রচুর।

মাউন্ট অ্যাথোস
গ্রিসের মাউন্ট অ্যাথোসেও নারী প্রবেশ নিষেধ। এক সময় পর্যন্ত পুরুষ প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল এখানে। তবে ১৯৯৮ সালে বিশ্ব হেরিটেজ তালিকায় স্থান পাওয়া এই পাহাড়ি এলাকার মঠ ও আশ্রমগুলোতে নারী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

ম্লিমাদজি বিচ
আফ্রিকার দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত এই সমুদ্র সৈকত আসলে কমোর দ্বীপের অংশ। এখানকার ধর্মীয় আশ্রমগুলোতে নারী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

ওকিনোশিমা
জাপানের পবিত্র এলাকাগুলোর মধ্যে অন্যতম ওকিনোশিমা। তবে এখানে নারী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। পুরুষদের ক্ষেত্রেও সারাবছর প্রবেশ অনুমতি থাকে না। প্রতি বছর মে মাসে প্রবেশের অনুমতি পান তারা।

হোয়াইট জেন্টলম্যানস ক্লাব
এটি কার্যত ধনকুবেরদের ক্লাব। এটি উনিশ শতকে জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল। বর্তমানে এর অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তবে এক সময়ে অত্যন্ত আলোচনায় থাকত এই ক্লাব। নিজের ব্যাচেলার পার্টি এই ক্লাবে উদযাপন করেছিলেন প্রিন্স চার্লস। এখানেও নারী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।