বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ডেঙ্গু

বিশ্বের মহামারী রোগসমূহের মধ্যে অন্যতম প্রাণঘাতী হলো ডেঙ্গু। এটি একটি ভাইরাসজনিত জ্বর। ডেঙ্গুর জীবানু বহনকারী স্ত্রী এডিস মশার কামড়ের মাধ্যমে রোগটি ছড়ায়। বিশ্বে প্রতিবছর লাখ লাখ লোক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)- এর তথ্যানুযায়ী বিশ্বে মশাবাহী রোগসমূহের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ ও প্রাণঘাতী হলো ডেঙ্গু। গেল ৫০ বছরে ডেঙ্গু প্রায় ৩০ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিশ্বের একশটিরও বেশি দেশে রোগটি মহামারী আকার ধারণ করেছে। ফলে সে দেশগুলোর জনগণ যা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশেরও কিছু বেশি, ডেঙ্গুর প্রবল ঝুঁকিতে রয়েছে।

বর্তমানে বিশ্বে ডেঙ্গুর প্রকোপ সবচেয়ে বেশি বিরাজ করছে দক্ষিণ এশিয় অঞ্চলে। এছাড়া আমেরিকা মহাদেশ ও পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশসমূহও ডেঙ্গু মহামারী তালিকার শীর্ষে রয়েছে।

বিশ্বে প্রতিবছর ৩৯০ মিলিয়ন লোক প্রাণঘাতী এ রোগের ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকে। এরমধ্যে ৫ লাখ লোক জ্বরে আক্রান্ত হয় এবং তাদের মধ্য থেকে গড়ে ২৫ হাজার লোকের মৃত্যু হয়।

তবে একটু সচেতন হলেই প্রাণঘাতী এ ব্যাধি নির্মূল করা অনেকটাই সম্ভব। ডেঙ্গু রোগের জীবানুবহনকারী এডিস মশা সাধারণত ময়লা পুকুর বা ডোবায় ডিম পারে না। এরা পরিষ্কার ও জমে থাকা পানিতে ডিম পেরে থাকে।

আমরা যদি আমাদের চারপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখি ও কোথাও পানি জমে থাকতে না দেই, তবে এডিস মশার বংশবৃদ্ধি রোধ করার মাধ্যমে এ মহামারী রোগের প্রকোপ অচিরেই দূর করা যাবে।

সূত্র: ওয়ার্ল্ড মসকিউটো প্রোগ্রাম

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।