নালিতাবাড়ী হাসপাতালের চিকিৎসককে বেধরক মারধর

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার দেলোয়ার হোসেনকে (৪৫) বেধরক মারধর করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) সকাল সোয়া আটটার দিকে হাসপাতাল চত্বরে শহরের কাচারিপাড়া মহল্লার জাহাঙ্গীর আলম তাকে মারধর করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সোমবার দিবাগত রাত আটটা থেকে জরুরী বিভাগে রাত্রীকালীন দায়িত্বে ছিলেন উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার দেলোয়ার হোসেন। সকাল আটটার দিকে জরুরী বিভাগে কোন রোগী না থাকায় সামনের চায়ের দোকানে চা পান করতে যান। ইতিমধ্যে কাচারিপাড়া মহল্লার নূর ইসলামের ছেলে গাড়ি চালক জাহাঙ্গীর আলম (৩০) তার অসুস্থ শিশুকে নিয়ে জরুরী বিভাগে আসেন। আসা মাত্র চিকিৎসক না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে জরুরী বিভাগে থাকা একটি কাঠের টোল হাতে নিয়ে চটে যান দেলোয়ারের কাছে। এসময় দেলোয়ার হোসেন জরুরী বিভাগে আসছিলেন। জরুরী বিভাগের সামনে থাকা গোল চত্বরে আসা মাত্রই জাহাঙ্গীর কাঠের টোল উচিয়ে চিকিৎসক দেলোয়ারকে বেধরক পিটাতে থাকে। পরে তার ডাক-চিৎকারে আশপাশের মানুষ ছুটে এসে উদ্ধার করে। থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহমুদুল বাশার এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, এটা অবশ্যই গর্হিত অপরাধ। একজন চিকিৎসক সারারাত দায়িত্ব পালন করে সকালে চা খেতে যাওয়ার কারণে তার সাথে এমন আচরণ অন্যায়। এ ব্যাপারে আমরা আইনগত ব্যস্থা নিচ্ছি।

এ ব্যাপারে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, এটা অবশ্যই অন্যায়। পুলিশ পাঠিয়েছিলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের