You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

নালিতাবাড়ীতে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ, দূর্ভোগে যাত্রীরা

বাস মালিকদের দ্বন্দ্বের কারনে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় দুইদিন ধরে দুরপাল্লার নালিতাবাড়ী টু ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ রযেছে। এতে ময়মনসিংহ ও ঢাকাগামী যাত্রীরা দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন। বুধবার গন্তব্যে যেতে চাওয়া বাস টার্মিনালে আসা যাত্রীদের হতাশা দেখা গেছে।
উপজেলা বাস মালিক শ্রমিক ইউনিয়ন সূত্রে জানা গেছে, মহাখালি থেকে নালিতাবাড়ী-ঢাকা ও নালিতাবাড়ী মালিক সমিতির ৩২টি গাড়ি চলাচল করে। প্রতি রাতে ১২টার দিকে পর্যায়ক্রমে নালিতাবাড়ী থেকে চারটি গাড়ী ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। গত ৩১ জুলাই সোমবার রাতে চারটি বাস ঢাকা পৌঁছলে মহাখালি বাস মালিক সমিতির ওই চারটি বাস আটকে দেয়। অপরদিকে, গত মঙ্গলবার ভোরে ঢাকা থেকে নালিতাবাড়ীর উদ্দেশে ছেড়ে আসা চারটি বাস নালিতাবাড়ী বাস মালিক সমিতি আটকে দেয়। এতে দুই দিন ধরে নালিতাবাড়ী থেকে রাজধানীর সরাসরি বাস যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে। ফলে দুই দিন ধরে ময়মনসিংহ ও রাজধানী গামী যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়ে। যাত্রীরা বিকল্প হিসেবে বেশি টাকা খরচ করে সিএনজি চালিত অটো রিকশা যোগে নকলা উপজেলা গিয়ে শেরপুর জেলা শহর থেকে ছেড়া আসা রাজধানী গামী গাড়িতে চলাচল করতে হচ্ছে। এতে নালিতাবাড়ী থেকে রাজধানীগামী যাত্রীরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন।
বুধবার সকালে নালিতাবাড়ী পৌরশহরের বাস টারমিনালে গিয়ে দেখা গেছে, অনেকযাত্রী সরাসরি ঢাকা যেতে না পেরে হতাশা প্রকাশ করেন। তারা বাধ্য হয়ে ঢাকা অথবা ময়মনসিংহ যেতে অটো রিকশায় করে নকলা উপজেলায় যাচ্ছেন। পৌরশহরের জাকিয়া আক্তার বলেন, আমি প্রতিদিন নালিতাবাড়ী থেকে ময়মনসিংহ আনন্দ মোহন কলেজের মাস্টাস ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করি। কিন্ত বাস চলাচল বন্ধ থাকায় বৃষ্টি মধ্যে বেশি ভাড়া ও সময় ব্যায় করে বিকল্প ভাবে ময়মনসিংহ যেতে হচ্ছে। দ্রুত গাড়ী চলাচল ব্যবস্থা করা হলে ভালো হয়। এ সময় নালিতাবাড়ী বাস মালিক কর্তৃপক্ষ ঢাকা থেকে আসা চারটি বাস আটকে দেয় এবং নালিতাবাড়ী-ঢাকা রোডে সকল বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। এর ফলে দুর্ভোগে পড়ে যান যাত্রীরা। পৌর শহরের বাসিন্দা সামেদুল ইসলাম (৪৮) বলেন, আমার ছেলে ময়মনসিংহে লেখাপড়া করে। তাই তার সাথে দেখা করতে গিয়ে বাস স্টেশনের জানতে পারি বাস চলাচল বন্ধ। তাই যেতে পারলাম না। দ্রুত বাস চলাচল স্বাভাবিক হলে সবার জন ভালো হয়।
মহাখালি মাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক বলেন, শেরপুর, ময়মনসিংহ, গাজীপুর ও ঢাকা বাস মালিক সমিতির সঙ্গে যৌথভাবে রাতে গাড়ি চলাচলের জন্য একটা নীতিমালা তৈরি করা হয়েছে। কিন্ত নালিতাবাড়ী বাস মালিক সমিতির কোন নিয়ম মানে না। তাই এই দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। শেরপুরের মালিক সমিতির সঙ্গে নিয়ে নালিতাবাড়ী বাস মালিকদের বিষয়টি সমাধান করতে ঢাকায় আসতে বলেছি।

নালিতাবাড়ী বাস মালিক সমিতির সভাপতি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, পাঁচ বছর ধরে মহাখালি বাস মালিক সমিতির নিতিমালা অনুযায়ী গাড়ি পরিচালনা করা হচ্ছে। হঠাৎ কিছু না বলে চারটা গাড়ি আটকিয়ে দেওয়া বিষয়টি বুঝতে পারলাম না। তাই তাদের চারটা গাড়ী মালিক সমিতি আটকে দিয়েছেন। এ ব্যাপরে মহাখালি বাস মালিক সমতির পক্ষ থেকে কোন যোগাযোগ করেনি।

শেরপুর টাইমস/বা.স

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!