নারী পুরুষ সমানভাবে না এগুলে দেশের উন্নয়ন হবে না ——–কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী

কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, নারী পুরুষ সমানভাবে না এগুলে দেশের উন্নয়ন হবে না। নারীকে যদি আমরা নুলা বা অনগ্রসর করে রাখি তাহলেও দেশ এগুবেনা। বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের মৃত্যুর ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে শেখ হাসিনাই প্রথম জনগনের সরাসরি ভোটে মহিলা মেম্বার নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। এখন নারীরা দেশের প্রজাতন্ত্রের বিভিন্নস্তরে কাজ করছে। আওয়ামী লীগ যেভাবে নারীদের নির্বাচন করার জন্য মনোনয়নের টিকিট দেয় অন্যদল তা দেয় না।

কৃষিমন্ত্রী আজ ২৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দুপুরে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় কর্মজীবি মহিলা কাম ট্রেনিং সেন্টার ভবনের উর্দ্ধমুখী স¤প্রসারনের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও তৃতীয় তলা ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আয়োজিত এক মহিলা সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন, অন্য দল ক্ষমতায় এলে তারা ফ্যাশন করা নিয়ে ব্যস্ত থাকে। আর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে ওয়াসফিয়ার মতো নারী এভারেষ্ট জয় করার উৎসাহ পায়। জঙ্গীবাদ প্রসঙ্গে কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছেন। মা-বাবা জন্মদাতা হলেও মানুষ মারার অধিকার একমাত্র আল্লাহ ছাড়া আর কারো নেই।

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহিন আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকী। অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রকল্প পরিচালক আইনুল কবীর, শেরপুর জেলা কৃষক লীগের আহবায়ক আব্দুল কাদির, নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মুকলেছুর রহমান রিপন, ভাইস চেয়ারম্যান আছমত আরা আছমা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মেহের আফরোজ চুমকী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আগামী ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হবে। ২ লক্ষ নারীকে ৩০ কেজি করে চাল দিচ্ছে। গর্ভকালীন ও মাতৃত্বকালীনভাতা দিচ্ছে, বিধবা এবং বয়স্কভাতা দিচ্ছে। ইতোমধ্যে নারীদের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী নানামুখী কর্মসুচী হাতে নিয়েছেন। দেশের অর্ধেক মানুষই মহিলা। তাই মহিলাদের প্রশিক্ষণের জন্য ২৫০ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এখন দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়ে ৭১ বছর হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় মানুষের পাশে দাড়াচ্ছে। দেশের একটি মানুষও যাতে না খেয়ে মারা যায় সেজন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। এই কর্মজীবি মহিলা হোস্টেলে প্রতি ব্যাচে ৫০ জন করে প্রশিক্ষণের সুযোগ পাচ্ছে। যা আগামী সময়ে আরো বাড়ানো হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন, পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গণি, নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরফদার সোহেল রহমান প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।