নাকুগাঁও স্থলবন্দরে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য মেডিকেল টিম গঠিত

শেরপুর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সরকারি নির্দেশনা পাওয়ার পর করোনা ভাইরাস যাচাই-বাছাই করার জন্য ৩ সদস্য বিশিষ্ট দু’টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। একই সাথে জেলা সদর হাসপাতালে করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হলে তাকে রাখার জন্য আলাদাভাবে আইসোলেশন ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) বিকেলে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বুধবার (২৯ জানুয়ারি) সকাল থেকে পুরোদমে এর কার্যক্রম শুরু করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

শেরপুর জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ একেএম আনওয়ারুর রউফ জানান, ৩ সদস্য বিশিষ্ট গঠিত মেডিকেল টিম দু’টি নালিতাবাড়ীর নাকুগাঁও স্থলবন্দরে পর্যায়ক্রমে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভারত থেকে বাংলাদেশে আসা যাত্রীদের করোনা ভাইরাস আছে কি-না তা যাচাই করবে। কাউকে সন্দেহ হলে তাকে জেলা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হবে। পরবর্তীতে ঢাকায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য পাঠানো হবে। ওই আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১০টি বেড রাখা হয়েছে।

এদিকে, নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মমিনা খানম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নাকুগাঁও স্থলবন্দরের ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট দিয়ে বেশির ভাগ বাংলাদেশিরাই যাতায়াত করে। তাই এখানে করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি অনেকটাই কম। তারপরও আমাদের ৩ সদস্যের মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। আমরা নিয়মিত খোঁজখবর রাখছি। এই রোগের সিনড্রোম দেখা গেলেই রোগীর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি।

উল্লেখ্য, দেশের অন্যতম নাকুগাঁও স্থলবন্দর ও ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট দিয়ে মাসে প্রায় ৬/৭শ জন মানুষ ব্যবসায়িক কাজে ভারতসহ ভুটানে আসা-যাওয়া করেন।

 

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।