নকলায় স্বাস্থ্য কর্মীদের হাম-রুবেলা প্রশিক্ষণ বর্জন

শেরপুরের নকলা উপজেলায় কর্মরত স্বাস্থ্য সহকারীসহ সকল স্বাস্থ্য কর্মীরা হাম-রুবেলা (শিশু রোগ বিষয়ক) প্রশিক্ষণ কর্মসুচী বর্জন করেছেন। বাংলাদেশ হেলথ এ্যাসিসট্যান্ট এ্যাসোসিয়েশন এর কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নকলা উপজেলায় কর্মরত সকল স্বাস্থ্য কর্মীরা এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচী বর্জন করেন।

 সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে স্বাস্থ্য সহকারী (এইচএ), সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক (এএইচআই) ও স্বাস্থ্য পরিদর্শক (এইচআই) গন এ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে গিয়ে দেখা যায়, প্রশিক্ষণ কক্ষ ব্যানার ও চেয়ার টেবিল দিয়ে সাজানো; কিন্তু কক্ষে কেউ উপস্থিত নেই। বাংলাদেশ হেল্থ এ্যাসিসট্যান্ট এসোসিয়েশন (বিএইচএএ)’র জেলা ও উজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ, সকল স্বাস্থ্য সহকারীসহ স্বাস্থ্য কর্মীরা হাসপাতাল ভবণের সামনে তাদের দাবী সংশ্লিষ্ট ব্যানার ও মনি পতাকা হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে দাবি সংশ্লিষ্ট সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা করছেন।

সুত্রে জানা যায়, কেন্দ্রীয় দাবী বাস্তবায়ন সমন্বয় পরিষদের ডাকে সারাদেশ ব্যাপী স্বাস্থ্য সহকারীদের টেকনিক্যাল স্কেল (বেতন কোড-১১) আদায়ের লক্ষ্যে ১ ফেব্রয়ারী থেকে হাম-রুবেলা প্রশিক্ষণ বর্জনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন বিভিন্ন স্তরের স্বাস্থ্য কর্মীরা। বাংলাদেশ হেল্থ এ্যাসিসট্যান্ট এসোসিয়েশন (বিএইচএএ)’র শেরপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নকলা উপজেলায় কর্মরত স্বাস্থ্য সহকারী আনোয়ার হোসেন তাঁর বক্তেব্যে জানান, প্রায় দুই যুগ আগে (১৯৯৮ সালের ৬ ডিসেম্বর) তৎকালীন ও বর্তমান স্বাস্থ্য বান্ধব সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা রাজধানী ঢাকায় স্বাস্থ্য সহকারীদের এক মহাসমাবেশে স্বাস্থ্য সহকারীদের টেকনিক্যাল মর্যাদাসহ স্কেল প্রদানের আশ্বাস দিয়েছিলেন।

কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া মূল্যবান ওই আশ্বাস আজও আলোর মুখ দেখেনি। স্বাস্থ্য বান্ধব এই সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া সেই আশ্বাসের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই আমরা স্বাস্থ্য সহকারীরা সারাদেশ ব্যাপী এ কর্মসূচী পালন করেছি। বাংলাদেশ হেল্থ এ্যাসিসট্যান্ট এসোসিয়েশন (বিএইচএএ)’র নকলা উজেলা শাখার সভাপতি আব্দুল হালিম জানান, স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন আপগ্রেডেশন ও টেকনিক্যাল স্কেল পাওয়ার দাবিতে গত ২২ জানুয়ারি থেকে আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছি।

বাংলাদেশ হেল্থ এ্যাসিসট্যান্ট এসোসিয়েশন (বিএইচএএ)’র নকলা উজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মাসুম বেলাল জানান, দীর্ঘ্যদিন ধরে বারবার দাবি করার পরেও, তাদের ন্যায্য দাবি মেনে না নেওয়ায় তারা এ কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। তাদের ন্যায্য দাবি দ্রুত মেনে না নিলে, পরবর্তীতে আরও কঠোর ও দীর্ঘ্য মেয়াদি কর্মসূচি ঘোষনা করে তা পালন করা হবে বলে জানান অনেক স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা। এসময় উপজেলায় কর্মরত সকল স্বাস্থ্য পরিদর্শক (এইচআই), সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক (এএইচআই) ও স্বাস্থ্য সহকারী (এইচএ) উপস্থিত ছিলেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।