You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

নকলায় বিতার্কিকদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ

শেরপুরের নকলায় বাল্য বিবাহ বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী বিতার্কিকদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়েছে। ১৭ অক্টোবর মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব কুমার সরকারের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুর রশিদের সঞ্চালণায় ‘বাল্য বিবাহকে না বলুন’ ও ‘জোরের যুক্তি নয়, যুক্তির জোর চাই’ এই শ্লোগানকে ধারন করে দুইদিন ব্যাপী ‘এ’ শাখায় ১২টি স্কুল এবং ‘বি’ শাখায় ৪টি কলেজের মধ্যে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ওই বিতর্ক প্রতিযোগিতা ১৬ অক্টোবর সোমবার সকালে শুরু হয়ে সন্ধা পর্যন্ত এবং ১৭ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে পুনরায় শুরু হয়ে বিকালে শেষ হয়।

বিচারকদের রায়ে স্কুল শাখায় নয়াবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন এবং নকলা পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় রানার্সআপ হয়; ৩টি কলেজ ও একটি ফাজিল মাদরাসার মধ্যকার প্রতিযোগিতায় হাজী জালমামুদ কলেজ চ্যাম্পিয়ন ও চৌধুরী মহিলা কলেজ রানার্সআপের গৌরব অর্জন করে। স্কুল শাখায় শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হন নয়াবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মরিয়ম আক্তার হ্যাপী এবং কলেজ শাখায় শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হন হাজী জালমামুদ কলেজের শিক্ষার্থী নাজমুল ইসলাম নাঈম।

এতে বিচারক মন্ডলীর সভাপতি খ্যাতিমান বিতার্কিক ও বিতর্ক বিষয়ে বহু গ্রন্থ প্রণেতা রাজীব কুমার সরকারের সভাপতিত্বে বিচারকের দায়িত্বে ছিলেন, শেরপুর সরকারী কলেজের সহযোগী অধ্যাপক শিবশংকর কারুয়া, শেরপুর সাহিত্য কেন্দ্রের সদস্য সচিব হাকিম বাবুল, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ তানজিল আহমেদ চৌধুরী, উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সাবিহা খাতুন। ফলাফল ঘোষণার শেষে আমন্ত্রিত অতিথিরা বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন। পরে বিজয়ী স্কুল-কলেজের শিক্ষক, বিজয়ী ও শ্রেষ্ঠ বিতার্কিকরা আমন্ত্রিত অতিথি ও বিচারকমন্ডলীদের সাথে ফটোশেসনে অংশ নেন।

শেরপুর টাইমস/ বা.স

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!