তীব্র শীতে ভোগান্তিতে পড়েছে দরিদ্র মানুষ

শৈত প্রবাহ শুরু হওয়ায় জেলার সর্বত্র ঘন কুয়াসা, কনকনে ঠান্ডা বাতাস ও তীব্র শীতের কারনে ভোগান্তিতে পড়েছে শেরপুরের হত দরিদ্র মানুষ। বিশেষ করে জেলার সীমান্তবর্তী গারো পাহাড় ও জেলার বিভিন্ন চরাঞ্চলের হত দরিদ্র মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই। শুধু গ্রাম বা চরাঞ্চলেই নয় শীতে কাবু করেছে শেরপুর জেলা শহরের মানুষকেও। কনকনে বাতাসের কারণে জেলাবাসীর সকল প্রকার কাজ কর্মে ব্যাঘাত ঘটছে। শহরের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও শীতের কারণে ক্রেতা শুণ্য হয়ে পড়ছে। তবে শীত বস্ত্র ও পুরাতন শীতের গরম কাপড়ের দোকানে ভিড় বাড়ছে ক্রেতাদের। শীতের তীব্রতা কমাতে একটু উষ্ণতার জন্য সন্ধ্যার পর থেকেই শহরের বিভিন্ন চায়ের দোকানে ভিড় ল্য করা গেছে শীতার্ত মানুষের। শহরের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে মৌসুমী ভাপা ও চিতই পিঠা ব্যাবসায়ীদের ব্যাবসাও জমে উঠেছে। শীতের উঞ্চতার জন্য সাধারণ মানুষ দিনের বেলাতেও আগুন জ্বালিয়ে আগুন পোহাতে দেখা গেছে। এছাড়া গবাদি পশুদের গায়ে চট ও কাঁথা দিয়ে গা ঢেকে শীতের তীব্রতার হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

শেরপুর টাইমস/ বা.স

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের