তিন দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ স্কুলছাত্র অমি’র

খেলার মাঠ থেকে নিখোঁজের তিন দিনেও কোনপ্রকার সন্ধান মেলেনি শাহীন স্কুলের প্রঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী আকিব ইসলাম খান অমি’র (১২)। পুলিশের শরণাপন্ন হয়েও কাজ হচ্ছে না হতাশাগ্রস্থ পরিবারটির। ফলে অনেকটা অস্বাভাবিক হয়ে পড়েছেন অমি’র পরিবারের সদস্যরা। অমি শেরপুরের নালিতাবাড়ী শহরের কালিনগর বাইপাস এলাকার আব্দুর রউফ খানের ছেলে।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার (২ নভেম্বর) বিকেলে বাড়ির কাছেই নাজমুল স্মৃতি সরকারী কলেজ মাঠে খেলার সাথীদের সাথে খেলতে যায় অমি। বিকেল চারটার দিকে খেলার মাঠ থেকে বাসায় যাওয়ার কথা বলে চলে আসে সে। এরপর থেকে তাকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না। ওই সময় তার পড়নে লাল রঙের প্যান্ট ও গায়ে হলুদ রঙের গেঞ্জি ছিল।

এদিকে, নিখোঁজের পরপরই অমি’র সন্ধান চেয়ে নালিতাবাড়ীর বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হয়। থানায় করা হয় সাধারণ ডায়েরি। ফেসবুকসহ নানা মাধ্যমে অমি’র সন্ধান অব্যাহত থাকলেও আজ পর্যন্ত কোনপ্রকার তথ্য পুলিশ অথবা পরিবারের সদস্যদের হাতে আসেনি। এমতাবস্থায় নিখোঁজ অমির সন্ধান পেতে অস্বাভাবিক হয়ে উঠছেন পরিবারের সদস্যরা। তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অমিকে নিয়ে। পুলিশের সন্ধান প্রক্রিয়া নিয়েও তারা অসন্তোষ প্রকাশ করে আরও জোর দিয়ে সন্ধান চালাতে অনুরোধ জানিয়েছেন।
এর আগে অমির বড় ভাই গোলাম রাব্বি খান জেনিথকে ২০১৬ সালের ২৬ মার্চ ক্রিকেট খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে ক্ষুর দিয়ে মারাত্মক জখম করে একই এলাকার দুই যুবক। পরবর্তীতে ওই ঘটনায় এলাকাবাসীর আয়োজনে অপরাধীদের শাস্তির দাবীতে মানব বন্ধন করা হয়। জেনিথ বর্তমানে শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছে। ক্ষুরাঘাতের ঘটনায় চার্জশীট দাখিলের পর মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে।

অপরদিকে, জেনিথের ছোট ভাই অমি নিখোঁজের পর থেকে অভিযুক্ত যুবকদ্বয় গা ঢাকা দিয়েছে। এছাড়াও স্থানীয় এক মুদী দোকানদারও ঘটনার পর থেকেই দোকান বন্ধ রেখে আত্মগোপনে রয়েছেন। এমতাবস্থায় অমি নিখোঁজের ঘটনায় পূর্ব শত্রুতা হিসেবে এদের যোগসূত্র থাকতে পারে বলেও ধারণা করছে তার পরিবার।
এ বিষয়ে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বছির আহমেদ বাদল জানান, সব জেলায় শিশুটির ছবিসহ নিখোঁজের বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বেশকিছু সন্দেহভাজনের নামও হাতে এসেছে। সে আলোকেই খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

অমির সন্ধান পাওয়া মাত্রই ০১৭১৪৯৩৫২৫৮ এবং ০১৭১৬৯৪৫৩৬৭ নাম্বারে জানাতে অনুরোধ করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।