ঝিনাইগাতীর দেড় শতাধিক স্কুলে শহীদ মিনার নেই

মহান ভাষা আন্দোলনের ৬৪ বছর পেরিয়ে গেলেও শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলায় ২২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দেড় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকায় মাতৃভাষা দিবস পালনে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা দেখা দিয়েছে। সরেজমিনে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঘুরে দেখা যায়, ঝিনাইগাতী উপজেলার প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার অদ্যাবধি নির্মাণ করা হয়নি। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠানে নামে মাত্র শহীদ মিনার থাকলেও অযতœ ও অবহেলায় জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে। কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক জানান, প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জায়গা সংকুলান না হওয়া এবং ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের অবহেলার কারণে শহীদ মিনার নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি।
উপজেলা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৯৮টি, মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৩৮টি, কলেজের সংখ্যা ৮টি, বেসরকারী আনঃ রেজিষ্ট্রার প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩১টি, এবতেদায়ী স্বতন্ত্র মাদ্রাসা ৩টি, কিন্ডার গার্টেন ৩৪টি, উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন প্রাথমিক বিদ্যালয় ১টি, এনজিও বিদ্যালয় ৭টি সহ মোট ২২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় লক্ষাধিক ছাত্র-ছাত্রী অধ্যয়নরত আছে। মহান ভাষা আন্দোলনের ৬৪ বছর পেরিয়ে গেলেও ঝিনাইগাতী উপজেলায় প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এখন পর্যন্ত শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়নি। ওই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীরা প্রতি বছরই অনেক কষ্ট করে অন্য স্কুলে গিয়ে মহান মাতৃভাষা দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করছে।
শহীদ মিনার না থাকা কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভিভাবকরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, আমাদের প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকায় ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের দূরবর্তী অন্য স্কুলে নিয়ে যাওয়া হয়। যা ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের জন্য খুবই কষ্টসাধ্য। আমাদের দাবি, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মহান মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে উপজেলার প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাধ্যতামূলক শহীদ মিনার নির্মাণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, শহীদ মিনার তৈরিতে শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মোস্তফা কামাল জানান, আমরা এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসন থেকে একটি নির্দেশনা পেয়েছি। শীঘ্রই প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার স্থাপনের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
এ বিষয়ে ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ.জেড.এম. শরীফ হোসেন জানান, যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই, সেগুলো চিহ্নিত করে এবং যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার অবহেলিত অবস্থায় আছে সেগুলোর বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য উপজেলার প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ শিক্ষা অফিসগুলোকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।