ঝিনাইগাতীতে দোকানপাট বন্ধ রাস্তাঘাট প্রায় শূন্য

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রশাসন। একই সাথে সাপ্তাহিক হাট-বাজারও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শেরপুর জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় উপজেলায় মাইকিং ও গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই নির্দেশ জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন। প্রশাসনের কড়া নজরদারিতে উপজেলা শহরসহ গ্রামাঞ্চলের বাজার এবং রাস্তাগুলো প্রায় জনশূন্য করে দিয়েছেন। এসব কিছু সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবেল মাহমুদ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাশেদুল হাসান ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক।

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) উপজেলা শহরে ঘুরে দেখা যায়, দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। শুধু ঔষধের দোকান, কাচাঁবাজার, মুরগির দোকান খোলা রয়েছে। গণপরিবহনও কম দেখা গেছে। তবে নি¤œ আয়ের মানুষগুলো সমস্যায় পড়ে গেছে বলে জানা গেছে।

দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তৃতি মোকাবেলায় সরকার ইতোমধ্যে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এর প্রেক্ষিতে জনসাধারণকে ২৬ মার্চ সকাল ৬ টা থেকে অতিজরুরি যেমন- খাদ্য ও ঔষধ ক্রয়, চিকিৎসা ছাড়া কোনোভাবেই বাড়ী থেকে না বের হতে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবেল মাহমুদ জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে উপজেলার ঔষধের দোকান, কাচাঁবাজার ছাড়া সকল দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। টি স্টল বন্ধ থাকবে। এমনকি এসব স্থানে টিভি রাখা যাবে না। সাপ্তাহিক হাট ও পশুর হাটগুলো বন্ধ থাকবে। তবে জনসমাগম পরিহার করে ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয় বিক্রয় করা যাবে। নির্দেশনা না মানলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে প্রশাসন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।