You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

ঝিনাইগাতীতে চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের তিন নেতাসহ মাঠে ছয়জন

 

তৃতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের তিন ও বিএনপির এক নেতাসহ ভোটের মাঠে লড়াই করছেন ছয়জন প্রার্থী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এ উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আ.লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এস এম আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ নাইম (নৌকা)। সেই সাথে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মো. আবুল কালাম আজাদ (আনারস) ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. ফারুক আহামেদ ফারুক (মটর সাইকেল)।

অপরদিকে বিএনপির দলীয় ব্যানারে নির্বাচন না করলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মো. আমিনুল ইসলাম বাদশা (দোয়াত কলম)। এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির নেতা মো. আব্দুল ওয়াহেদ (হেলিকপ্টার) ও ন্যাশনাল পিপ্লস পার্টি (এনপিপি) মনোনীত প্রার্থী মো. আব্দুল হাই (আম)।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সতন্ত্রপ্রার্থী মো. ফারুক আহমেদ ফারুক বলেন, দলে ও মাঠে আমার যথেষ্ট সমর্থন থাকার পরেও দল আমাকে মনোনয়ন দেয়নি। দল যাকে (নাইম) মনোনয়ন দিয়েছে তার দলে ও মাঠে সমর্থন নেই। তাই দলীয় মনোনয়ন না পেয়েও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি আমি।

দলীয় মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আ.লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এস এম আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ নাইম বলেন, এর আগেও দুই বার নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে দলীয় কোন্দলের কারণে বিজয়ী হতে পারেনি। এবার দল আমাকে পছন্দ করে মনোনয়ন দিয়েছে। তাই তৃণমূল পর্যায়ে নেতাকর্মী ও জনগণ আমার সঙ্গে আছে। আশা করছি, আমি এবার নির্বাচিত হব। নির্বাচিত হলে এ সরকারের উন্নয়নের ধারাকে এগিয়ে নিতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করব।

এত বিদ্রোহী প্রার্থী কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে নাইম বলেন, এরা আ.লীগের কোন জায়গাতে নেই। তাই এরা দলের বিদ্রোহী নয়, এরা স্বতস্ত্র প্রার্থী। তবে আজাদ (যুবলীগের আহ্বায়ক) অবশ্য যুবলীগ করে। তার বিরুদ্ধে দল সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

বিএনপির দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে বিএনপি নেতা প্রার্থী হয়েছেন এ বিষয়ে জানতে চাইলে শেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মো. মাহমুদুল হক রুবেল সাংবাদিকদের বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শেরপুর জেলায় বিএনপির দুই-একজন নেতা মনোনয়নপত্র দাখিল করলেও এরা নির্বাচনী মাঠে নেই। তবু তাদেরকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে অনুরোধ করব। যদি তারা না শুনেন তাহলে দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!