You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

ঝিনাইগাতীতে গৃহকর্ত্রীকে কুপিয়ে আহতের মামলায় চোরের ১০ বছরের কারাদন্ড


শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে চুরির করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ায় গৃহবধূক কুপিয়ে আহত করার মামলায় ফজলুল করিম ফজল (৩০) নামে এক ব্যক্তিকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন শেরপুরের একটি আদালত। ওই মামলায় আরও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।
৭ মার্চ মঙ্গলবার বিকেলে শেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মোছলেহ্ উদ্দিন এ দন্ডদেশ প্রদান করেন। দন্ডপ্রাপ্ত আসামি ফজল ঝিনাইগাতী উপজেলার ভালুকা গ্রামের আকরাম হোসেনের ছেলে। মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় অপর আসামি ফজলুল করিমের বাবা আকরাম হোসেনকে খালাস দেওয়া হয়। তবে দন্ডপ্রাপ্ত আসামি ফজল পলাতক রয়েছে।
অতিরিক্ত পিপি এ্যাডভোকেট ইমাম হোসেন ঠান্ডু জানান, ঝিনাইগাতী উপজেলার ভালুকা গ্রামের প্রবাসী আরিফ হোসেনের স্ত্রী মর্জিনা বেগমের কাছে একই গ্রামের ফজলুল করিম ও তার বাবা আকরাম হোসেন বিভিন্ন সময়ে টাকা-পয়সা ধার চেয়ে আসছিল। এ টাকা না পেয়ে শত্রুতা বশত গত ২০১০ সালের ১৭ আগস্ট রাতে ওই গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করে কিছু স্বর্ণালঙ্কার ও একটি মোবাইল চুরি করে ফজল। চুরির সময় গৃহবধূ তা টের পেয়ে ফজলকে হাতেনাতে আটক করে ডাক-চিৎকার শুরু করলে ফজল তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে গৃহবধূকে এলোপাতারী কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।
এ ঘটনায় গৃহবধূ মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে পিতা-পুত্র ২ জনকে আসামি করে ঝিনাইগাতী থানায় অভিযোগ দায়ের করলে তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!