জিয়াউর রহমান মদের লাইসেন্স প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশে মাদক ব্যবসা চালু করেন ; মতিয়া চৌধুরী

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, নকলা-নালিতাবাড়ীর এমপি ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান দেশের যুব সমাজকে ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে ৩৬০টি মদের লাইসেন্স প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশে মাদক ব্যবসা চালু করেন। সে ধারাবাহিকতায় বর্তমানে মাদক বাংলাদেশে ভয়াবহ সমস্যায় পরিনত হয়েছে। আর মাদক নির্মুলকে চ্যালেন্স হিসেবে গ্রহণ করে অভিযান পরিচালনা করছে।

এতে কেবল মাত্র চিন্হিত মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের সাথে বন্ধুক যুদ্ধে মারা যাচ্ছে। শেখ হাসিনা বিনা কারণে কোন মায়ের বুক খালি করেন না। শনিবার দুপুরে শেরপুরের নকলা উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও দুঃস্থদের মাঝে ঈদ-উল ফিতরের উপহারসামগ্রী বিতরণী অনুষ্ঠান উপলে আয়োজিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

এসময় মন্ত্রী পুলিশ সুপারকে লক্ষ্য করে বলেন, আমাদের পার্টির কেউ যদি এ অপকর্ম করে ধরা পরে তাহলে আমাদের কোন সুপারিশ যাবে না আর যদি কেউ সুপারিশ নিয়ে যায় তবে তাকে পার্টি থেকে বহিস্কার করা হবে।

শেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, নকলা উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মাহবুবুল আলম সোহাগ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব কুমার সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আলতাব আলীসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ এবং প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সফরে মন্ত্রী উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ৫১ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৮ম ও ৯ম শ্রেণির মেধাবী প্রথম দশজনের মাঝে মোট ৫১০টি থ্রিপিস, ৪৮০টি শাড়ি, দশম শ্রেণির মেধাবী প্রথম দশজন করে মোট ৪৮০ জন শিার্থীর মাঝে ৫শ করে মোট ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা প্রনোদনা বিতরণ করেন। এছাড়াও গরীব ও দুঃস্থদের মাঝে শাড়ি, ট্রাউজার-গেঞ্জি সেট, শার্ট ও খেজুর বিতরণ করেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের