You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় যুবকের ৩০ বছর সশ্রম কারাদন্ড

শেরপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ করার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আব্দুর রাজ্জাক (২৫) নামে এক হাফেজ যুবকের ৩০ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়েছে। সে ঝিনাইগাতী উপজেলার লয়খা গ্রামের মো. জোনাব আলীর ছেলে। ২৩ অক্টোবর সোমবার বিকেলে আসামীর উপস্থিতিতে শেরপুরের শিশু আদালতের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মুছলেহ উদ্দিন ওই রায় ঘোষনা করেন। রায়ে বিচারক জরিমানার ৫০ হাজার টাকা ভিকটিমকে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু মামলার উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ঝিনাইগাতী উপজেলার মালিঝিকান্দা আয়েশা সিদ্দিকা কওমী মহিলা মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে দন্ডিত আব্দুর রাজ্জাক ২০১৬ সালের ১১ মে মাদ্রাসা যাওয়ার পথে স্থানীয় কোয়াররোড এলাকা থেকে অপহরণ করে। পরে বিভিন্নস্থানে রেখে বেশ কয়েকদিন তাকে ধর্ষণ করে। ওই ঘটনায় মেয়েটির বাবা ২ জনকে আসামী করে ঝিনাইগাতী থানায় মামলা করলে পুলিশ ঘটনার এক সপ্তাহ পর ধর্ষক রাজ্জাকসহ মেয়েটিকে উদ্ধার করে। এ সময় মেয়েটি ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়।

পরে তদন্ত শেষে একই বছর ৩১ আগষ্ট ঝিনাইগাতী থানার উপ-পরিদর্শক খোকন চন্দ্র সরকার রাজ্জাক ও দুলাল নামে ২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। মামলায় চিকিৎসক, তদন্ত কর্মকর্তা ও ভিকটিমসহ ৮ জন সাক্ষী প্রদান করেন। সাক্ষ্য প্রমাণে আসামী রাজ্জাকের বিরুদ্ধে সন্দেহাতীত ভাবে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক ওই রায় ঘোষনা করেন। অপর আসামী দুলালের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে খালাস দেওয়া হয়।

শেরপুর টাইমস/ বা.স

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!