ছাত্রীনিবাসে বন্ধনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় শ্রীবরদীতে মানববন্ধন

শেরপুর জেলা শহরের সজবরখিলা এলাকার ফৌজিয়া মতিন পাবলিক স্কুলের ছাত্রীনিবাসে আনুসকা আয়াত বন্ধন (১৪) নামে নবম শ্রেনীর এক ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় হত্যার অভিযোগ তুলে শ্রীবরদীতে মানব বন্ধন ও স্বারক লিপি প্রদান করেছে ছাত্রছাত্রীরা। রবিবার (৭ জুলাই) দুপুরে শহরের চৌরাস্তা মোড়ে প্রায় এক ঘন্টা ব্যাপী এ মানববন্ধন শেষে প্রধানমন্ত্রী বরাবর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়।

মানব বন্ধনে ছাত্রছাত্রী ও অংশগ্রহণকারীরা বন্ধন হত্যার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি তুলেন। এসময় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এডিএম শহিদুল ইসলাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার হামিদুর রহমান, বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল্লাহ ছালেহ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন ও উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক জিয়াউল হক জেনারেল প্রমুখ। এতে অংশ গ্রহণ করে শ্রীবরদী সরকারি কলেজ, এপিপিআই উচ্চ বিদ্যালয় ও এমএনবিপি সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীসহ স্থানীয়রা।

উল্লেখ্য, বন্ধন শ্রীবরদী উপজেলার পূর্ব ছনকান্দা গ্রামের আনোয়ার জাহিদ বাবুল মৃধার মেয়ে। বন্ধন জেলা শহরের ফৌজিয়া মতিন পাবলিক স্কুলের ছাত্রীনিবাসে থেকে নবম শ্রেনীতে পড়াশুনা করছিল। শনিবার বন্ধনকে নিজ কক্ষে ওড়না পেচিয়ে ঝুলে থাকতে দেখে এক ছাত্রী। পরে স্কুল কর্তৃপক্ষ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ সময় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। মৃত বন্ধনের পরিবারের দাবী তাকে হত্যা করে মরদেহ ঝুলিয়ে রেখেছে। এ ব্যাপারে মৃত বন্ধনের বাবা আনোয়ার জাহিদ বাবুল মৃধা বাদী হয়ে শেরপুর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ফৌজিয়া মতিন পাবলিক স্কুলের পরিচালক আবু ত্বাহা সাদি (৫২)সহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।