You dont have javascript enabled! Please download Google Chrome!

খালেদা জিয়া দুর্নীতি করে জেলে গিয়েছেন, নকলায় মতিয়া চৌধুরী

কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি একটি ধাপ্পাবাজ রাজনৈতিক দল, তারা দেশের মানুষকে অন্ধকারে রেখে প্রতারণার মাধ্যমে ক্ষমতায় যেতে চায়। তাদের দলের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতি ও এতিমের টাকা আত্মসাৎ করে জেলে গিয়েছেন, এতে সরকারের কোন হস্তক্ষেপ নেই।

কৃষিমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার সকালে শেরপুরের নকলা উপজেলা পরিষদ চত্বরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে লোহার বেঞ্চ, হাসপাতাল ও কমিউনিটি কিনিকসমূহে ডেলিভারি বেড ও ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবার আর্থিক সাহায্য বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন এতিমের টাকা আত্মসাতের দায়ে জেলে আছেন। এখন দুর্নীতির মামলায় দ-প্রাপ্ত ও বাংলাদেশের নাগরিকত্বহীন তারেক রহমানকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এটা দেশের মানুষের সাথে সরাসরি প্রতারণা। শুধু তারেক রহমান নয়, তাঁর পরিবারের সকল সদস্যই পাসপোর্ট সারেন্ডার করে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বিসর্জন দিয়েছেন। এখন লন্ডনে কোম্পানী খুলে ব্যবসা পরিচালনা করছেন। ফলে তাঁরা কীভাবে বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলের নেতৃত্ব পরিচালনা করতে পারেন, তা কারো বোধগম্য নয়।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, ১৯৯২ সনে বিএনপির সরকারের আমলে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক বাংলাদেশে আসে। কিন্তু তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া তাদের দিকে একবারের জন্যও ফিরে তাকাননি। অপরপক্ষে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের শুধু পুনর্বাসনই করেননি অধিকন্তু তাদের দুঃখ দুর্দশা স্বচক্ষে পরিদর্শন করে সকল মানবিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। যা সারা দুনিয়ায় প্রশংসিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী নকলা উপজেলার ৭১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঁচ জোড়া করে লোহার বেঞ্চ, নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ১১টি কমিউনিটি কিনিককে একটি করে ডেলিভারি বেড ও তিনজন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগিকে নগদ ৫০ হাজার করে টাকা প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মল্লিক আনোয়ার হোসেন, পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গনি, নকলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব কুমার সরকার, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ কে এম মাহবুবুল আলম, ভাইস চেয়ারম্যান সরোয়ার আলম তালুকদার, পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আলতাব আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের

error: Alert: কপি হবেনা যে !!