একটি ভাড়া নেয়া গ্যারেজ থেকেই আজকের গুগল

একটি ভাড়া নেয়া গ্যারেজ। দুজন পিএইচডি কোর্সের ছাত্র সেখানে গড়ে তুললেন বিশ্বজয়ের একটি মাধ্যম। যার মাধ্যমে তারা সত্যিই জয় করলেন বিশ্বকে। দুনিয়াদারিকে দুনিয়া ডট কম-এ পরিণত করার জাদুকাঠি নিয়ে এই সংস্থা শুরু হয়েছিল ভাড়া করা একফালি গ্যারেজে। আজ অভিধানে কিছু খোঁজার অর্থ পাল্টে দিয়েছে ‘গুগল’। যা নাকি ছিল দুই বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়ার মানসসন্তান।

বর্তমানে বিশ্বে সর্বাধিক ব্যবহৃত সার্চ ইঞ্জিন হল গুগল। প্রায় ১১০৮০ কোটি ডলার মূল্যের এই সংস্থার যাত্রা শুরু আজ থেকে কুড়ি বছর আগে। সবথেকে আশ্চর্যজনক হল, গুগলের দুই স্রষ্টার সাক্ষাৎ ছিল নেহাতই কাকতালীয়।

নয়ের দশকের শেষে ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করতে এসেছিলেন ল্যারি পেজ এবং সের্গেই ব্রিন। ২২ বছর বয়সী পেজ কিছু দিন আগে এসেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। সদ্য বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ ব্রিন-কে তিনি নিয়ে গিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস ঘুরিয়ে দেখাতে। সেখানেই সূত্রপাত আলাপের।

শুরুর দিকে পেজ-ব্রিনের সঙ্গে ছিলেন স্কট হ্যাসান। গুগল সার্চ ইঞ্জিনের বেশিরভাগ কোড তিনিই লিখেছিলেন। পরে তিনি এই প্রজেক্ট থেকে সরে গিয়ে রোবোটিক্স নিয়ে গবেষণা করেন। শুরু করেন সংস্থা ‘উইলো গ্যারেজ’।

তবে গুগল নয়, পেজ-ব্রিন প্রথমে সার্চ ইঞ্জিনের নাম রেখেছিলেন ‘ব্যাকরাব’। পরে নামকরণ করা হয় ‘গুগল’। শব্দটি এসেছে ‘Googol’ থেকে । এর অর্থ ১-এর পরে মোট ১০০ টি শূন্য। গুগলের ডোমেন প্রথমে রেজিস্টার্ড হয় ১৯৯৭ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর। সংস্থার জন্মদিন পালন করা হয় প্রতি বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর।

ক্যালিফোর্নিয়ার মেনলো পার্কে ১৯৯৮-এর সেপ্টেম্বরে পথচলা শুরু গুগলের অফিসের। সুজান ওজকিকির গ্যারাজ ভাড়া নিয়েছিলেন পেজ-ব্রিন। সেটাই ছিল গুগলের আঁতুড়ঘর। সুজান ওজকিকি ছিলেন গুগল-এর প্রথম ম্যানেজিং ডিরেক্টর। এখন তিনি ইউটিউব-এর সিইও।

পরে ২০০৭ সালে ওজকিকির বোন অ্যানকে বিয়ে করেন ব্রিন। ৬ বছর পরে ২০১৩ সালে তাদের বিয়ে ভেঙে যায়। এখন বিশ্বজুড়ে ৭০টিরও বেশি অফিস রয়েছে গুগল-এর। বার্ষিক রাজস্ব ৫ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি। লভ্যাংশের ৯৯ শতাংশ আসে বিজ্ঞাপন থেকে। একশোটির বেশি ভাষায় কাজ করে গুগল।

২০০৪ সালের ১ এপ্রিল গুগল বিশ্ববাসীর সামনে আনে জিমেল-কে। কেউ ভাবতেই পারেনি গুগল ১ জিবি ফ্রি স্টোরেজ দিচ্ছে। সবাই ভেবেছিল, এটা নিশ্চই গুগলের এপ্রিল ফুল প্র্যাঙ্ক। এখন প্রতি মাসে জিমেল-এর অ্যাক্টিভ ইউজার ১৪০ কোটি।

বিশ্বের প্রথম চারটি প্রযুক্তি-সংস্থার মধ্যে একটি গুগল। বাকি তিনটি হল অ্যামাজন, অ্যাপল ও ফেসবুক। বহুজাতিক গুগলের বর্তমান সিইও সুন্দর পিচাই। তিনি ল্যারি পেজের কাছ থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ল্যারি পেজ গুগলের মূল সংস্থা অ্যালফাবেটের সিইও হন। এই সংস্থার প্রেসিডেন্ট সের্গেই ব্রিন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।