উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখবেন যেভাবে

:মোস্তাফিজুর রহমান জুয়েল:

জীবনযাত্রার সাধারণ কিছু পরিবর্তন করে সহজেই হাইপারটেনশন বা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। অনিয়ন্ত্রিত রক্তচাপ অনেক ধরণের স্বাস্থ্য সমস্যা, বিশেষত হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে। রক্তচাপ বৃদ্ধির সঙ্গে নানা কারণ জড়িত। তবে উচ্চ রক্তচাপের জন্য অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাত্রা ও খাদ্যাভ্যাস প্রধানত দায়ী।
সাম্প্রতিক এক গবেষণা থেকে জানা গেছে, দীর্ঘ সময় টানা কাজ করলে তা উচ্চ রক্তচাপ সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখতে পারে। আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের জার্নাল হাইপারটেনশনে প্রকাশিত সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে যে, দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করলে তা কর্মীদের উচ্চ রক্তচাপকে বাড়িয়ে তুলতে পারে। কাজের সময় খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন, রক্তচাপকে প্রভাবিত করে এমন অনেক উপাদানেই আপনি চাইলে পরিবর্তন আনতে পারেন।
হাইপারটেনশন প্রাকৃতিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে আপনি যেসব স্বাস্থ্যকর পরিবর্তন আনতে পারেন-
নিয়মিত ব্যায়াম করুনঃ
নিয়মিত ব্যায়াম আপনাকে প্রাকৃতিকভাবে অনেক স্বাস্থ্য ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করবে। এটি আপনাকে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এবং হৃদপিণ্ডের স্বাস্থ্যের উন্নয়নে সহায়তা করতে পারে। নিয়মিত ব্যায়াম করলে উচ্চ রক্তচাপের বিকাশ বন্ধ হয়ে যায়। এটি ওজন বাড়ার মতো রক্তচাপ বৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারে এমন অন্যান্য কারণগুলিও নিয়ন্ত্রণ করবে। স্বাস্থ্যকর রক্তচাপের জন্য আপনাকে জিমে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটাতে হবে না। শুধু সকালে হাঁটলেই এটি আপনাকে ইতিবাচক ফলাফল দিতে পারে।
খাদ্যাভ্যাসে প্রয়োজনীয় পরিবর্তন করুনঃ
আপনার খাওয়া খাবারটি আপনার দেহের অভ্যন্তরে প্রায় প্রতিটি প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করে। তাই আপনার খাদ্যাভ্যাস আপনার রক্তচাপের উপর প্রভাব ফেলে। প্রাকৃতিকভাবে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত করে এমন কিছু খাবার আপনার খাদ্যাভ্যাসে যুক্ত করার মধ্য দিয়ে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে। স্বাস্থ্যকর রক্তচাপ বজায় রাখার জন্য খাদ্যতালিকায় যেসব খাবার যুক্ত করতে পারেন সেগুলির মধ্যে দই, সবুজ শাকসবজি, কলা, ওট, বেরি, বীজ, জলপাই তেল এবং ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার উল্লেখযোগ্য। সেইসঙ্গে অবশ্যই লবণ গ্রহণের পরিমাণ হ্রাস করা উচিত।
মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ করুনঃ
স্ট্রেস বা মানসিক চাপ বিভিন্নভাবে আপনার স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলতে পারে। প্রতিদিনের বিভিন্ন ঘটনা মানসিক চাপ সৃষ্টি করে। আর এই স্ট্রেস আপনার উচ্চ রক্তচাপের উচ্চ ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। আপনি যদি সারাদিন অতিরিক্ত চাপ অনুভব করেন, রক্তচাপ কমাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করুন। ব্যায়াম, যোগব্যায়াম ও ধ্যান কার্যকরভাবে চাপ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। আপনার যদি দীর্ঘ কর্মঘণ্টা থাকে, তবে চাপের সঙ্গে লড়াই করতে আপনাকে অবশ্যই মাঝে মধ্যে বিরতি নিতে হবে।
ধূমপান ত্যাগ করুনঃ
নিয়মিত ধূমপানের সঙ্গে অনেকগুলি স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কিত। ধূমপান আপনার রক্তচাপ বাড়িয়ে তুলতে পারে। আপনি যদি নিয়মিত ধূমপায়ী হন তবে আপনাকে অবশ্যই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ধূমপান ছাড়ার চেষ্টা করতে হবে। অক্ষম হলে ধূমপান ছেড়ে দেয়ার জন্য চিকিৎসকের সহায়তা নিন।
লেখক:-জেনারেল প্রেক্টিশনার।
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।