ঈ‌দের ছু‌টি‌তে আসুন অর্কিডে

শেরপুর জেলা শহরের মধ্যেই ব্যক্তি উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে অর্কিড পর্যটন প্রকল্প। তাই‌তো কোরবানী ঈ‌দের ছু‌টি‌তে আড্ডা দি‌তে চ‌লে আসুন অ‌র্কি‌ডে। এ প্রকল্পের চারিদিকে রয়েছে সারি সারি দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির সবুজ গাছ, মাঠ জুড়ে রয়েছে সবুজ ঘাস আর সান বাঁধানো পুকুর। পুকুরের চারপাশে মাছ খেতে বসে থাকে সাদা-সাদা বক। সবুজ বাতায়নের ওই অর্কিড প্রাঙ্গণের খাঁচায় খেলা করছে বানর, টার্কিছ, খরগোশসহ দেশীয় বিভিন্ন জীবজন্তু। প্রিয়জন অথবা বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে বসে আড্ডা দেয়ার জন্য রয়েছে বেশ কয়েকটি ছাতা এবং ছাতার নিচে রয়েছে বসার জন্য চেয়ার। চা, কফি ও সেভেন-আপ বা কোকাকোলা পানের জন্য রয়েছে ছনের তৈরী সুদৃশ্য ক্যান্টিন এবং রেস্ট হাউজ। এ যেন শহরের মধ্যে এক খন্ড সবুজের লীলা ভুমি। পরিবার-পরিজন নিয়ে হাতের কাছে বেড়ানো বা শহুরে জীবনের একঘেয়েমি কাটাতে চমৎকার একটি পারিবারিক বিনোদন কেন্দ্র এই ‘অর্কিড পর্যটন কেন্দ্র’।

শেরপুরের এক ব্যবসায়ী আজহার আলী তৈ‌রি ক‌রে‌ছেন
এই অ‌র্কিড পর্যটন প্রকল্প। তি‌নি শেরপুর টাইমস‌কে জানান, মনের মাধুরি মিশিয়ে অর্থ,মেধা আর শ্রম দিয়ে তিলে তিলে সৃষ্ঠি করেছেন অর্কিড পর্যটন প্রকল্প। আর অর্কিডকে ঘিরে প্রকৃতির সাথে মিতালী করার এক অপূর্ব সুযোগ সৃষ্ঠি হয়েছে। সারা অর্কিডটি যেন শিল্পির তুলির ছোয়ায় আঁকা গভীর  চিন্তার এক শিল্পকর্ম। নয়নভিরাম এ শিল্প কর্মটি এ পর্যন্ত করতে সময় লেগেছে দুই যুগ। কত টাকা গেছে তার হিসাব জানেনা আজাহার আলী।

‌যেভা‌বে আস‌বেন-
শেরপু‌রের খোয়ারপাড় থেকে ঝিনাইগাতী রোডের যে‌কোন  সিএন‌জি, অ‌টো‌রিক্সা‌যো‌গে কান্দাপাড়া এলাকায় অ‌র্কিড পর্যটন কে‌ন্দ্রে যে‌তে পার‌বেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।