আমরা এখনও বিচার বিভাগকে বিশ্বাস করি: রিজভী

কারাবন্দি দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে আদালতে ন্যায়বিচার পাওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বুধবার বিকালে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বলেন, দুঃশাসনকবলিত মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল ও ভরসার জায়গা হল দেশের বিচারালয়। আমরা এখনও বিচার বিভাগকে বিশ্বাস করি। বিশেষ করে সুপ্রিমকোর্ট নিরপেক্ষ থেকে ন্যায়বিচার করবেন, আইনের শাসন কায়েম থাকবেন। আমরা আশা করি, মহামান্য আদালত সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে তার প্রাপ্য হক জামিন দিয়ে মুক্ত পরিবেশে পছন্দমতো হাসপাতালে স্বাধীনভাবে সুচিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ দেবেন। আইন, সংবিধান, মানবাধিকার, বয়সসহ সব বিবেচনা অনুযায়ী জামিন পাওয়া তার ন্যায়সঙ্গত অধিকার। দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা চেয়ারপারসনের জামিন নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় সময় পার করছেন। আমরা আশা করি, উচ্চ আদালত সবকিছু বিবেচনা করে সঠিক রায় দেবেন।

রিজভী আরও বলেন, এ দেশের জনগণের প্রাণপ্রিয় দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে বিনা অপরাধে ৬৭২ দিন ধরে নির্দয়ভাবে বন্দি রাখা হয়েছে। মানসিক নিপীড়নে ৭৫ বছর বয়সী গুরুতর অসুস্থ দেশনেত্রীর অবস্থা খুবই বিপজ্জনক। সেই কারণেই সরকার তার জীবনকে আরও বিপন্ন করার জন্য জামিন দিচ্ছে না। যে কোনো সময় তার স্থায়ী পঙ্গুত্বের আশঙ্কা রয়েছে। দেশের জনগণ তাদের নয়নমণি দেশনেত্রীকে নিয়ে প্রতিমুহূর্ত গভীর উৎকণ্ঠায় কালাতিপাত করছেন। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) তার জামিনের শুনানি হবে। দেশের মানুষ গভীর আশা নিয়ে দেশের সর্বোচ্চ বিচারালয়ের দিকে তাকিয়ে আছে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের নেতা আহমেদ আযম খান, মুনির হোসেন, সেলিমুজ্জামান, আ ক ম মোজাম্মেল হক, খান রবিউল ইসলাম, আনোয়ার হোসাইন, ঢাবি ছাত্রদলের তরিকুল ইসলাম, মাসুদুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।