অর্থাভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারছে না মেধাবী আলমগীর

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েছে আলমগীর কবির।  কোন রকমের কোচিং ছাড়াই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয় এবং সর্বশেষ জামালপুরের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা বিশ্ববিদ্যালয়ে খ এবং গ ইউনিটে যথাক্রমে মেধা তালিকায় ২য় ও ৭ম স্থান অর্জন করে।
শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলার পশ্চিম বেলতৈল গ্রামের দিন মজুর মুজিবুর রহমানের ৫ সদস্যর সংসারে এমনিতেই নুন আনতে পানতা ফুরায় তার উপর ছেলের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি জন্য প্রায় ২০ হাজার টাকার প্রয়োজন। যেখানে এক দিনের খাবার যোগার করতেই তাকে হাঁপিয়ে উঠতে হয়, সেখানে কোথায় পাবে সে ২০ হাজার টাকা ।
এক সময় আলমগীরের লেখাপড়া বন্ধের উপক্রম হলে স্থানীয় সেচ্ছাসেবী সংগঠন “ডপস” এর সহযোগিতায় পুনরায় শুরু হয় তার শিক্ষাজীবন। এর পর সে এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পায় এবং উচ্চ মাধ্যমিক পাশের পর সে এখন এসে দাড়িয়েছে বঙ্গমাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের দরজায়। আগামী ১০ থেকে ১৪ মার্চ পর্যন্ত ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
এমতাবস্থায় কোন হৃদয়বান বিদ্যানুরাগী ব্যক্তি যদি আলমগীরের ভর্তি ব্যাপারে সহযোগীতায় এগিয়ে আসেন তাহলেই তার পক্ষে ভর্তি হওয়া সম্ভব।
আলমগীরের বাবা মুজিবুর রহমান জানায়, আমার কোন সামর্থ নেই যে ছেলেকে ভার্সিটিতে পড়াবো। এতোদিন ‘ডপস’ এর সহায়তায় এ পর্যন্ত পড়ালেখা কইরা আইছে। এহনও যদি কেউ সহযোগীতা করে তবে পড়তে পারবো।  আলমগীরের সাথে যোগাযোগের নাম্বার ০১৭৮৪-৫৬৮৩৯১-৯ (ডাচবাংলা)।

 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের