শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে অবৈধভাবে উত্তোলিত বালু পরিবহনের রাস্তা ও জমি সংক্রান্ত বিরোধে গলিয়াত রেমা নামের এক দুলা ভাইয়ের হামলায় তিন গারো আদিবাসী শ্যালিকা আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারী) সকালে উপজেলার রামচন্দ্রকুড়া ইউনিয়নের পানিহাটা তাড়ানী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- ওই গ্রামের প্রয়াত মলয় রেমার কন্যা রীনা মানকীন, বিচিত্রা মানকীন ও মনীষা মানকীন। এদের মধ্যে রীনা মানকীন নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন। বাকী দুইজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। জানা গেছে, উপজেলার ভারত সীমাঘেঁষা রামচন্দ্রকুড়া ইউনিয়নের জিরো পয়েন্ট এলাকার পানিহাটা তাড়ানী গ্রামের পাশ দিয়ে প্রবাহিত ভোগাই নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ করে আসছে কতিপয় অসাধু বালু ব্যবসায়ীরা। এই অবৈধ বালু ব্যবসার সাথে জড়িত গলিয়াত রেমা। ওই বালু পরিবহনের রাস্তা নিয়ে গলিয়াতের শাশুড়ী, শ্যালক ও শ্যালিকাদের মাঝে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জেড়ধরে মঙ্গলবার সকালে উভয়ের মাঝে বাকবিতন্ডা ও একপর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে গলিয়াত সঙ্গীয়দের নিয়ে তার শ্যালিকা রীনা মানকীন, বিচিত্রা মানকীন ও মনীষা মানকীনের উপর হামলা করেন। এতে তারা তিন জনই গুরুতর আহত হন। এসময় স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। স্থানীয়রা জানান, গলিয়াত খুব খারাপ প্রকৃতির লোক। তার শ্বাশুড়ী ও শ্যালিকাদের সাথে নানা কারনে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ করে আসছিল। এ নিয়ে এলাকায় কয়েক দফায় গ্রাম্য শালিস অনুষ্ঠিত হলেও তা সুরাহা হয়নি। এ ব্যাপারে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক বলেন, এই হামলার ঘটনায় গলিয়াতের বিরুদ্ধে তার শ্যালিকা বাদী হয়ে অভিযোগ দাখিল করেছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত সাপেক্ষে খুব দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।