সোমবার , ২৮শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ || ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - হেমন্তকাল || ৩রা জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

শেরপুরে মোমবাতি প্রজ্জলনের মাধ্যমে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ

প্রকাশিত হয়েছে -

শেরপুরে শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে মোমবাতি প্রজ্জলনের মাধ্যমে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করা হয়েছে। সন্ধ্যায় শহরের পৌর নিউমার্কেট চত্বরে সাংবাদিক বিপ্লবী সভাকক্ষ পরিচালনা পর্ষদ এ মোমবাতি প্রজ্জলন কর্মসূচির আয়োজন করেন। এতে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং সুধীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

এসময় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন শিক্ষাবিদ শিব শংকর কারুয়া শিবু, সাংবাদিক সুশীল মালাকার, জনউদ্যোগ আহŸায়ক আবুল কালাম আজাদ, জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা লুৎফুন্নাহার, সহ-সম্পাদিকা আঞ্জুমান আরা যুথী, নারী উদ্যোক্তা আইরীন পারভীন, সাবেক পৌর নারী কাউন্সিলর নিরু শামছুন্নাহার নীরা, সাংবাদিক হাকিম বাবুল, উদীচী সংগঠক এস.এম. আবু হান্নান, খেলাঘর সংগঠক মমিনুল ইসলাম, শ্রমিক সংগঠক হারান চন্দ্র সাহা, কমিউনিস্ট পার্টির শামীম আহমেদ, সদর উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আব্দুল হাই, জেলা নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক নূর মোহাম্মদ, সাংস্কৃতিক সংগঠক ব্রতচারি নূর মোহাম্মদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বিজয়ের আগমূহুর্তে বুদ্ধিজীবী হত্যাকান্ডকে পাকিস্তানী শাসকগোষ্ঠির বাঙালী জাতীকে মেধাশুন্য করার অপকৌশল হিসেবে অভিহিত করে তীব্য নিন্দা ও ঘৃণা প্রকাশ করেন। একইসাথে বুদ্ধিজীবীদের হত্যাকারীসহ স্বাধীনতাবিরোধী সকল অপশক্তির বিচার এবং বিচারের রায় দ্রুত কার্যকরের দাবী জানান। তারা বলেন, এখনও পাকিস্তানী হানাদারদের দোসর অনেক অপশক্তি মুক্তবুদ্ধির চর্চাকারী প্রগতিশীল শক্তিকে বিনাশ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে এবং হামলা, নির্যাতন, হত্যাকান্ড চালাচ্ছে। আজকের এই দিনে সেইসব অপশক্তিকে দমনে মোমবাতি প্রজ্জলনের মাধ্যমে সকল অন্ধকার দূর করে নতুন চেতনায় সকলকে উদ্ধুদ্ধ হওয়ার আহবান জানানো হয়।

Advertisements

এদিকে, শেরপুর মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ও শহীদ গোলাম মোস্তফা স্মৃতি পাঠাগার কর্তৃপক্ষ নিউমার্কেট তৃতীয় তলায় এ উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জলন ও আলোচনা সভার আয়োজন করে।